অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির নাম ঘোষণা

ভিয়েনায় অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের ১১২ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটির নাম ঘোষণা করা হয়েছে

ভিয়েনা ডেস্কঃ রবিবার (৩ ডিসেম্বর) ভিয়েনার ২০ নাম্বার ডিস্ট্রিক্টে অবস্থিত অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের অফিসে এই বিশাল কমিটির ঘোষণা দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি অল ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সভাপতি এম নজরুল ইসলাম। অবশ্য তিনি শুধুমাত্র কার্যকরী কমিটির প্রথম দিকের কয়েকজনের নাম ঘোষণা করেন। বাকী নাম অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের সভাপতি খন্দকার হাফিজুর রহমান নাসিম পাঠ করে শুনান।

এখানে উল্লেখ্য যে,গত ৪ নভেম্বর অস্ট্রিয়ার আওয়ামীলীগের সফল ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে খন্দকার হাফিজুর রহমান নাসিমকে সভাপতি ও মিজানুর রহমান শ্যামলকে সাধারণ সম্পাদক করে ঘোষণা করে বলা হয়েছিল যে, এক মাসের মধ্যেই পূর্ণাঙ্গ কমিটি উপস্থাপন করা হবে। তারই ধারাবাহিকতায় অস্ট্রিয়া আওয়ামীলীগ তার পূর্ণাঙ্গ কার্যকরী কমিটির নাম ঘোষণা করে। পূর্ণাঙ্গ কমিটির নাম ঘোষণা অনুষ্ঠানে সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের পুনরায় নব নির্বাচিত সভাপতি খন্দকার হাফিজুর রহমান নাসিম ও সঞ্চালনার দায়িত্ব পালন করেন নতুন সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান শ্যামল।

সভাপতির সংক্ষিপ্ত ভাষণে অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের সভাপতি খন্দকার হাফিজুর রহমান নাসিম বলেন যে,গত ৪ নভেম্বর ভিয়েনায় ইউরোপের বিভিন্ন দেশের আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে অত্যন্ত সুন্দর, সুশৃন্খল ও নিয়মতান্ত্রিকভাবে অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন সম্পন্ন হয়।

তিনি দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, সফল ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের সপ্তাহ খানেক পর অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের কয়েকজন সদস্য পারস্পরিক ভুল বুঝার থেকে একটি প্রতিবাদ সভা করেন। তিনি জানান, পরবর্তীতে অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের নব গঠিত কমিটির শীর্ষ নেতৃবৃন্দ তাদের সাথে কয়েক দফা বৈঠকের পর ভুল বুঝাবুঝির অবসান হয়।

অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির নাম ঘোষণার পূর্বে প্রধান অতিথির সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে অল ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সভাপতি এম নজরুল ইসলাম বলেন, দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকারকে আবারও ক্ষমতায় আনতে হবে। তিনি অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের নতুন কমিটির নেতৃবৃন্দকে পদ-পদবী নিয়ে বসে না থেকে সক্রিয় হওয়ার অনুরোধ করেন।

তিনি জানান, আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে তিনি খুব শীঘ্রই দেশে যাবেন।

তিনি তার বক্তব্যে অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দকে সুযোগ থাকলে ছুটি নিয়ে আসন্ন দ্বাদশ নির্বাচনে দেশে যাওয়ার অনুরোধ করেন। আর যেতে
না পারলে টেলিফোনের মাধ্যমে যার যার এলাকার ভোটারদের মধ্যে গণ সংযোগের কথা বলেন।

অনুষ্ঠানের শেষে আগত অতিথি ও নেতৃবৃন্দকে অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে রাতের খাবারে আপ্যায়ন করা হয়।

কবির আহমেদ/ইবিটাইমস/এম আর 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »