স্পেনকে হারিয়ে বিশ্বকাপ ফুটবলের কোয়ার্টার ফাইনালে মরক্কো

টাইব্রেকারে টিকিটাকার ছন্দের স্পেনকে ৩-০ গোলে হারিয়ে প্রথমবারের মতো কোয়ার্টারে ফাইনালে উঠল উত্তর আফ্রিকার মুসলিম দেশ মরক্কো

স্পোর্টস ডেস্কঃ গতকাল মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) কাতার বিশ্বকাপ ফুটবলের নক-আউট রাউন্ডে উত্তর আফ্রিকার মুসলিম দেশ মরক্কো প্রথম বারের মত বিশ্বকাপ ফুটবলের কোয়ার্টার ফাইনালে উন্নীত হয়েছে।

কাতার বিশ্বকাপে নক আউট পর্বের লড়াইয়ে টাইব্রেকারে স্পেনকে ৩-০ গোলে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করলো মরক্কো। খেলার প্রথমার্ধে গোলশূন্য থেকে বিরতিতে যায় মরক্কো ও স্পেন।

গতকাল কাতারের এডুকেশন সিটি স্টেডিয়ামে মাঠে নামে এই দু’দল। খেলার শুরু থেকেই আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে খেলতে থাকে উভয় দল। বেশ কিছু সুযোগ পেলেও গোল করতে ব্যর্থ হয় দু’দল। শেষ পর্যন্ত কোন গোল না হলে গোলশূন্য থেকেই বিরতিতে যায় স্পেন ও মরক্কো। এরপর বিরতি থেকে ফিরেও গোল না হলে অতিরিক্ত সময়ে গড়ায় ম্যাচটি। অতিরিক্ত সময়েও গোলের দেখা না পেলে শেষ পর্যন্ত টাইব্রেকারে গড়ায় ম্যাচটি। টাইব্রেকারে দুইটি গোল রক্ষা করে মরক্কোর জয়ের নায়ক গোলরক্ষক ইয়াসিন বাউনু।

খেলার অতিরিক্ত সময়ের গোলের আশায় মরিয়া হয়ে খেলতে থাকে দু’দল। খেলার ৯৪ মিনিটে বল নিয়ে এগিয়ে যায় ওয়ালিদ চেদ্দারি। তবে গোল করতে ব্যর্থ হন তিনি। খেলার ৯৭ মিনিটে সুযোগ আসে স্পেনের সামনে। তবে বাম দিক থেকে ভেসে আসা বলে মাথা ছোঁয়াতে ব্যর্থ হয় মোরাতা।

খেলার ১০০ মিনিটে আবারও সুযোগ আসে স্পেনের সামনে। তবে মোরাতার বাড়ানো বলে মাথা ছোঁয়াতে ব্যর্থ হলে গোল পাওয়া হয় না স্পেনের। ১০৩ মিনিটে ডি বক্সের বাইরে থেকে শট করে রদ্রিগো। তবে তা চলে যায় ক্রসবারের অনেক ওপর দিয়ে। তারপর খেলার ১০৪ মিনিটে আক্রমণে যায় মরক্কো। ওয়ালিদ চেদ্দারির নেওয়া শট দারুণ সেভে দলকে রক্ষা করেন উনাই সিমন। গোল করতে ব্যর্থ হলে গোলশূন্য থেকে অতিরিক্ত সময়ের প্রথমার্ধ শেষ করে স্পেন ও মরক্কো।

বিরতি থেকে ফিরে অতিরিক্ত সময়ের ১০৬ মিনিটে আক্রমণে ওঠে স্পেন। তবে গোল করতে ব্যর্থ হয় তারা। এরপর আরও কিছু আক্রমণ করে দু’দল। তবে গোলের দেখা পায় না কেউ। ম্যাচের ১১৫ মিনিটে কাউন্টার অ্যাটাক থেকে গোলের সুযোগ তৈরী করলেও বল জালে জড়াতে ব্যর্থ হয় ওয়ালিদ চেদ্দারি। খেলার ১১৭ মিনিটে বল নিয়ে এগিয়ে যায় মোরাতা। গোলের সুযোগ সৃষ্টি করলেও গোল করতে ব্যর্থ হয় স্পেন। এরপর আরও বেশ কিছু আক্রমণ করলেও গোল করতে ব্যর্থ হয় দু’দল। শেষ পর্যন্ত গোলের দেখা না পেলে টাইব্রেকারে গড়ায় ম্যাচটি।

টাইব্রেকারে মরক্কোর পক্ষে প্রথম শট নিয়ে গোল করেন আব্দেল হামিদ সাবিরি। স্পেনের পক্ষে প্রথম শটে বল সাইড বারে লাগান পাবলো সাবারিয়া। এরপর মরক্কোর পক্ষে দ্বিতীয় শট থেকে গোল করে ব্যবধান বাড়ান হাকিম জিয়েস। স্পেনের দ্বিতীয় শট নিতে আসেন কার্লো সোলের। তার শট ঠেকিয়ে দেন মরক্কোর গোলরক্ষক ইয়াসিন বউনো।

এরপর মরক্কোর পক্ষে তৃতীয় শট নিতে আসেন বার্ড বেনেউ। তার শট ঠেকিয়ে দেন স্পেনের গোলরক্ষক উনাই সিমন। তবে স্পেনের তৃতীয় শট নিতে আসা সার্জিও বুস্কেটের শটও থেকিয়ে দেন ইয়াসিন বউনো। এরপর মরক্কোর পক্ষে চতুর্থ শট নিতে আসা আশরাফ হাকিমি গোল করে দলের জয় নিশ্চিত করেন। শেষ পর্যন্ত টাইব্রেকারে ৩-০ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে মরক্কো। এই জয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে পা রাখে মরক্কো। অন্যদিকে হেরে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিলো স্পেন।

গতকাল কাতার বিশ্বকাপের শেষ নক-আউট রাউন্ডে সুইজারল‌্যান্ডকে ৬-১ গোলে হারিয়ে ১৬ বছর পর বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠল পর্তুগাল। ২১ বছর বয়সী অভিষিক্ত রামোসের হ‌্যাটট্রিকে অতি সহজেই শেষ আটে পা রেখেছে পর্তুগাল। এবারের বিশ্বকাপে এটিই এখন পর্যন্ত একমাত্র ‌হ‌্যাটট্রিক।

রামোসের হ‌্যাটট্রিক বাদে একটি করে গোল করেছেন পেপে, রাফায়েল জুরেরিও ও রাফায়েল লিও। শুরুর একাদশে ছিলেন না রোনালদো। তবে তাকে ছাড়া পর্তুগালের জিততে একটুও বেগ পেতে হয়নি। কোয়ার্টার ফাইনালে তাদের প্রতিপক্ষ মরক্কো।

অবশ্য খেলার ৭৩ মিনিটে মাঠে নামলেন রোনালদো। ফেলিক্সকে তুলে ম‌্যাচের ৭৩ মিনিটে রোনালদোকে মাঠে নামালেন কোচ সান্তোস। তখন পুরো স্টেডিয়ামে গগনবিদারী চিৎকার। রোনালদোকে মাঠে নামতে দেখে ভক্তরা উল্লাসে ফেটে পড়েছেন। টানা ৩১ ম‌্যাচ পর প্রথম কোনো মেজর প্রতিযোগিতায় শুরুর একাদশে ছিলেন না রোনালদো। শেষ ম‌্যাচে কোচের সঙ্গে ঝামেলায় জড়িয়েছিলেন সিআর সেভেন। বিশ্বকাপে প্রথম হ‌্যাটট্রিক রামোসের। নিজের অভিষেক ম‌্যাচেই হ‌্যাটট্রিক করলেন।

গতকাল মরুর বুকে প্রথম বিশ্বকাপের প্রথম পর্ব পেরিয়ে শেষ হয়ে গেলো নক-আউট রাউন্ডও। কাতারের মাটিতে ৩২ দলের লড়াই এখন ৮ দলের এসে ঠেকেছে।। বিশ্বকাপের সোনার ট্রফি কার হাতে উঠছে তা দেখতে আর মাত্র ৭ খেলার অপেক্ষা।

কাতার বিশ্বকাপ ফুটবলের দ্বিতীয় পর্ব শেষে কোয়ার্টার ফাইনাল খেলার টিকিট নিশ্চিত করেছে ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, ফ্রান্স, ইংল্যান্ড, পর্তুগাল, নেদারল্যান্ডস,ক্রোয়েশিয়া ও মরক্কো।

কোয়ার্টার ফাইনালের লড়াই শুরুর আগে রয়েছে দুইদিনের বিরতি। জিতলে শিরোপা দিকে আরও একধাপ এগিয়ে যাওয়া, হারলে ধরতে হবে বাড়ির পথ। দলগুলোর হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের মাঝে ফুটবলারদের মধ্যেও শুরু হয়ে গেছে ব্যক্তিগত গোল্ডেন বুটের লড়াই।

কাতার বিশ্বকাপ ফুটবলের প্রথম পর্ব শেষে নক-আউট পেরিয়ে কোয়ার্টারে ওঠার লড়াইয়ে জ্বলে উঠেছেন অনেক তারকা, অনেক দল আবার দলীয় পারফরম্যান্সেই পৌঁছেছেন কোয়ার্টারে। দলের জয়ে বড় ভূমিকা রেখে যারা প্রতিপক্ষের জালে বল জড়িয়েছেন একাধিকবার, তারাই এখন এগিয়ে রয়েছেন বিশ্বকাপের সর্বচ্চ গোলদাতার পুরস্কার গোল্ডেন বুট জেতার লড়াইয়ে।

বিশ্বকাপ ফুটবলের প্রথম পর্ব ও নক-আউট পর্ব শেষ হওয়ার পর এখন ৫ গোল নিয়ে এই মুহুর্তে গোল্ডেন বুটের লড়াইয়ে শীর্ষে রয়েছেন ফ্রান্সের কিলিয়ান এমবাপ্পে। আবার ৩ গোল থাকা লিওনেল মেসি, রিচার্লিসন, বুকায়ো সাকা বা অলিভিয়ের জিরুদদের সামনেও সুযোগ আছে গোল্ডেন বুটের লড়াইয়ে সবার উপরে উঠে যাওয়া।

আগামী শুক্রবার (৯ ডিসেম্বর) থেকে শুরু হবে কাতার বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালের লড়াই। তার আগে চলুন এক নজরে দেখে নেওয়া যাক কোয়ার্টারের আগে গোল্ডেন বুটের লড়াইয়ে এগিয়ে রয়েছে কোন তারকারা- গোলদাতা গোল সংখ্যা কিলিয়ান এমবাপ্পে (ফ্রান্স) ৫ গোল, লিওনেল মেসি (আর্জেন্টিনা) ৩ গোল, রিচার্লিসন (ব্রাজিল) ৩ গোল,  অলিভিয়ের জিরুদ (ফ্রান্স) ৩ গোল, কোডি গ্যাকপো ৩ গোল, বুকায়ো সাকা ৩ গোল,  গঞ্জালো রামোস ৩ গোল।

গ্রুপ পর্ব পেরিয়ে শেষ হয়ে গেলো কাতার বিশ্বকাপের নক-আউট পর্বও। মরুর বুকে প্রথম বিশ্বকাপের সোনার ট্রফি কার হাতে উঠছে তা দেখতে আর মাত্র ৭ ম্যাচের অপেক্ষা।

নক-আউট শেষে কোয়ার্টারের টিকিট নিশ্চিত করেছে ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, ফ্রান্স, ইংল্যান্ডের মতো হট ফেভারিট দলগুলো। আবার তাদের সঙ্গী হয়ে চমক দেখানো মরক্কোও রয়েছে শেষ আটের লড়াইয়ে। স্পেনের মতো শিরোপা প্রত্যাশী দল ঝরে পড়েছে দ্বিতীয় পর্ব থেকেই।

আগামী শুক্রবার (৯ ডিসেম্বর) থেকে শুরু হবে কাতার বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালের লড়াই। তার আগে চলুন এক নজরে দেখে নেওয়া যাক কোয়ার্টার ফাইনালে কোন দল কবে কখন কার মুখোমুখি হচ্ছে- ম্যাচ বা খেলার তারিখ,সময় ও ভেন্যু ব্রাজিল-ক্রোয়েশিয়া ৯ ডিসেম্বর রাত ৯টা এডুকেশন সিটি স্টেডিয়াম।

আর্জেন্টিনা-নেদারল্যান্ডস ১০ ডিসেম্বর রাত ১ টা লুসাইল আইকনিক স্টেডিয়াম।

মরক্কো-পর্তুগাল ১০ ডিসেম্বর রাত ৯টা আল-থুমামা স্টেডিয়াম।

ইংল্যান্ড-ফ্রান্স ১১ ডিসেম্বর রাত ১টা আল বায়াত স্টেডিয়াম।

কবির আহমেদ/ইবিটাইমস 

EuroBanglaTimes

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »