অস্ট্রিয়ায় কঠোরভাবে করোনার “২-জি” নিয়ন্ত্রণ করা হবে:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কার্ল নেহামার (ÖVP) সোমবার ঘোষণা করেছেন যে পুলিশ জনসাধারণের জায়গায় ব্যবস্থাগুলি আরও নিবিড়ভাবে নিয়ন্ত্রণ করবে।

ইউরোপ ডেস্কঃ অস্ট্রিয়ান সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছেন আজ সোমবার ৮ নভেম্বর অস্ট্রিয়ার অধিকাংশ জায়গায় করোনার সংক্রমণের বিস্তার হ্রাসের চেষ্টায় নতুন নিয়ম ২-জি নিয়ন্ত্রণ কার্যকর হয়েছে।স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কার্ল নেহামার (ÖVP) আজ সোমবার ভিয়েনায় এক সাংবাদিক সম্মেলনে ঘোষণা করেছেন যে পুলিশ জনসাধারণের জায়গায় ব্যবস্থাগুলি আরও নিবিড়ভাবে নিয়ন্ত্রণ করবে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এই সাংবাদিক সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন অস্ট্রিয়ার জননিরাপত্তা বিভাগের মহাপরিচালক ফ্রাঞ্জ রুফ।

অস্ট্রিয়ান সংবাদ সংস্থা এপিএ জানিয়েছেন, আজ সোমবার ৮ নভেম্বর থেকে অস্ট্রিয়ার অধিকাংশ জায়গায় করোনার নতুন ২-জি (2G-REGEL) নিয়ম কার্যকর শুরু হয়েছে। ২জি নিয়ম হল,করোনার প্রতিষেধক টিকা গ্রহণ এবং করোনার থেকে যারা সম্প্রতি আরোগ্য লাভ করেছেন।বর্তমানে অস্ট্রিয়ায় করোনার চলমান চতুর্থ প্রাদুর্ভাবে সংক্রমণের বিস্তার অস্বাভাবিক হারে ছড়িড়ে পড়েছে। ফলে অস্ট্রিয়ার ফেডারেল সরকার ও ৯ টি রাজ্যের গভর্নরদের মধ্যে অনুষ্ঠিত বৈঠকে সমগ্র অস্ট্রিয়ায় করোনার ২জি নিয়ম প্রবর্তনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

অস্ট্রিয়ান পুলিশ সোমবার থেকে কার্যকর হওয়া পাবলিক স্পেসে ২জি রেগুলেশনের সাথে সম্মতি ক্রমবর্ধমানভাবে পর্যবেক্ষণ করবে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিক সম্মেলনে এই ঘোষণা দিয়ে আরও জানান, এই ২জি নিয়ম নিয়ন্ত্রণের জন্য অতিরিক্ত ৮০০ শত পুলিশ কর্মকর্তাকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। তারা পূর্ব থেকে নির্ধারিত ৪,০০০ হাজার পুলিশের অতিরিক্ত হিসাবে নিয়োগপ্রাপ্ত হয়েছেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন,যারা এই আইন অমান্য করবে তাদের অবশ্যই অর্থ জরিমানার সম্মুখীন হতে হবে। তিনি আরও জানান,যদি কেহ মিথ্যা সনদ বা কোন কারচুপির আশ্রয় নেয় তাহলে তাদেরকে গ্রেফতার ও ফৌজদারি মামলার সম্মুখীন হতে হবে।

পুলিশ ২জি (2G) নিয়মের নিয়ন্ত্রণ “উল্লেখযোগ্যভাবে বাড়াতে” চায়, ২জি রেগুলেশনে বা নিয়মে বলা হয়েছে যে, অন্যান্য জিনিসের মধ্যে, আপনি শুধুমাত্র শরীর-আলিঙ্গন পরিষেবা, রেস্তোরাঁ বা সাংস্কৃতিক এবং ক্রীড়া এলাকায় প্রবেশ করতে পারবেন যদি আপনার করোনার বিরুদ্ধে প্রতিষেধক টিকা দেয়া থাকে বা আপনি সম্প্রতি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে আরোগ্য লাভ করেছেন। অস্ট্রিয়ান পুলিশ এখন সংশ্লিষ্ট নিয়ন্ত্রণগুলি “উল্লেখযোগ্যভাবে বাড়াতে” চায় – বর্তমানে প্রতি সপ্তাহে প্রায় ১০,০০০ হাজার নিয়ন্ত্রণের পরিকল্পনা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কার্ল নেহামার। এই উদ্দেশ্যে বিশেষভাবে নিযুক্ত ৮০০ শতাধিক অতিরিক্ত অফিসারকে একা টহল দেওয়া হবে না, সেখানে ফৌজদারি তদন্তও হবে – উদাহরণস্বরূপ টিকার সনদ জালিয়াতির বিরুদ্ধে। তাই এই ৮০০ শত কর্মকর্তার সাথে সাধারণ টহল পুলিশও থাকবে।

২জি (2G) নিয়ন্ত্রণগুলি মূলত “Greencheck” অ্যাপে ব্যবহার করে করা হয়। কংক্রিট শর্তে নিয়ন্ত্রণগুলি কেমন হবে তা সকালে রাজ্য পুলিশ সদর দফতরে আলোচনা করা হয়েছিল, যেমন জননিরাপত্তার মহাপরিচালক ফ্রাঞ্জ রুফ বলেছেন।  যাইহোক, নিয়ন্ত্রণগুলি প্রধানত “গ্রিনচেক” অ্যাপ ব্যবহার করে পরিচালিত হয়, যার সাহায্যে পুলিশ অফিসাররা তাৎক্ষণিকভাবে টিকা বা পুনরুদ্ধারের সনদপত্র বৈধ কিনা তা পরীক্ষা করতে পারেন।  নিয়ন্ত্রণগুলি “সম্পূর্ণ পাবলিক স্পেসে প্রত্যাশিত,” নেহামার জোর দিয়েছিলেন।  বেসরকারি খাত এখনও বাদ।

অস্ট্রিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এই ২জি নিয়ম অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন ব্যক্তিগত পর্যায়ে জরিমানা ৫০০ শত ইউরো এবং রেস্টুরেন্ট বা প্রতিষ্ঠানকে ৩০,০০০ হাজার ইউরো পর্যন্ত করা হতে পারে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হুঁশিয়ারি দিয়ে আরও বলেন,কেহ মিথ্যা সনদের আশ্রয় নিলে ফৌজদারি মামলার সম্মুখীন হতে হবে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন,এটা কোন ছোট অপরাধ নয় !

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কার্ল নেহামার বলেন,করোনার সংক্রমণের বিস্তারের নিয়ন্ত্রণ চাপের লক্ষ্য হল সংক্রমণের সংখ্যা কমিয়ে আনা। ২জি নিয়মের এই কঠোর নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্য শুধুমাত্র করোনার সংক্রমণের বিস্তার কমিয়ে আনাই নয়,বরঞ্চ আরও বেশি লোককে টিকা দেয়ায় উদ্বুদ্ধ করা।করোনার প্রতিষেধক টিকা নিজের জীবনকে রক্ষা করতে পারে এবং অন্যকেও সংক্রমণের বিস্তার থেকে সুরক্ষা করতে পারে।তাই করোনার টিকা গ্রহণ উপরন্তু, এটি সামাজিক সংহতির বহিঃপ্রকাশ। তিনি সকলকে করোনার প্রতিষেধক টিকা গ্রহণ করে সরকার তথা দেশকে এই বিপর্যয় থেকে সুরক্ষার সহযোগিতা করার অনুরোধ করেন।

আজ অস্ট্রিয়ায় নতুন করে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন ৮,১৭৮ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ১৩ জন। রাজধানী ভিয়েনায় আজ নতুন করে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন ৯১২ জন।

অন্যান্য ফেডারেল রাজ্যের মধ্যে OÖ রাজ্যে ২,২০৬ জন, Steirmark রাজ্যে ১,৪১২ জন, NÖ রাজ্যে ১,২৭৭ জন, Salzburg রাজ্যে ৭৮০ জন, Kärnten রাজ্যে ৫৯৬ জন,Tirol রাজ্যে ৪৭৯ জন, Vorarlberg রাজ্যে ৩০৯ জন এবং Burgenland রাজ্যে ২০৭ জন নতুন করে সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন।

অস্ট্রিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী আজ সমগ্র অস্ট্রিয়াতে করোনার প্রতিষেধক টিকা দেয়া হয়েছে মাত্র ৮,০০২ ডোজ। এই পর্যন্ত মোট টিকাদানের পরিমাণ ১,১২,৮০,২৬৩ ডোজ। অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত করোনার প্রতিষেধক টিকার সম্পূর্ণ ডোজ গ্রহণ করেছেন মোট ৫৭,৬৬,৬৫১ জন,যা দেশের মোট জনসংখ্যার শতকরা ৬৪,৬% শতাংশ।

অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮,৯২,০৬৫ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ১১,৫১৫ জন।করোনার থেকে এই পর্যন্ত আরোগ্য লাভ করেছেন মোট ৮,০৪,০০৩ জন। বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৭৬,৫৪৭ জন। এর মধ্যে আইসিইউতে আছেন ৩৭৭ জন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ২,০০২ জন।বাকীরা নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন।

কবির আহমেদ/ ইবিটাইমস

EuroBanglaTimes

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »