হোম অফিসে অস্ট্রিয়ার রাস্ট্রপতি আলেকজান্ডার ফান ডার বেলেন

অস্ট্রিয়ার কয়েকটি রাজ্যে সম্পূর্ণ লকডাউনের সম্ভাবনা উড়িয়ে দেয়া যায় না বলে জানিয়েছেন শীর্ষ মহামারী রোগ বিশেষজ্ঞ গার্টলহনার

ইউরোপ ডেস্কঃ অস্ট্রিয়ান সংবাদ সংস্থা এপিএ জানিয়েছে, আজ থেকে অস্ট্রিয়ার রাস্ট্রপতি আলেকজান্ডার ফান ডার বেলেন বাসায় থেকে অফিস পরিচালনা করবেন।

এপিএ জানায়, আজ অস্ট্রিয়ার রাস্ট্রপতি ভবন হোফবুর্গের একজন স্টাফ করোনা সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন।রাস্ট্রপতির সচিবালয় জানিয়েছে, আক্রান্ত কর্মকর্তা করোনার প্রতিষেধক টিকার সম্পূর্ণ ডোজ গ্রহণের পরেও করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন।

সংবাদ সংস্থা আরও জানান,অস্ট্রিয়ার রাস্ট্রপতি বা প্রেসিডেন্ট আলেকজান্ডার ফান ডার বেলেন ইতিমধ্যেই করোনার প্রতিষেধক টিকার তৃতীয় বা বুস্টার ডোজ গ্রহণ করেছেন।আজ রাস্ট্রপতির কার্যালয় থেকে অস্ট্রিয়ান সংবাদ মাধ্যমকে দেয়া এক প্রেস ব্রিফিংয়ে বলা হয়েছে রাস্ট্রপতি আগামী কয়েকদিন নিজ বাসায় থেকে তিনি তার দায়িত্ব পালন করবেন।তাছাড়াও এই সময়ের মধ্যে তিনি কোনও অফিসিয়াল অ্যাপয়েন্টমেন্টে যোগ দেবেন না।

রাস্ট্রপতি আলেকজান্ডার ফান ডার বেলেন এক বার্তায় জানান,”আমি নিয়মিত করোনার পরীক্ষা চালিয়ে যাব এবং আমি আমার কর্মচারীসহ সমস্ত কোভিড আক্রান্তদের দ্রুত সুস্থতা কামনা করছি”।

এপিএ আরও জানান, অস্ট্রিয়ার রাস্ট্রপতির উক্ত কর্মকর্তা একজন মহিলা এবং তিনি রাস্ট্রপতির অফিসের একজন ঘনিষ্ঠ স্টাফ।তবে রাস্ট্রপতি ভবনের আর কারও আক্রান্তের খবর পাওয়া যায় নি।

এদিকে আজ অস্ট্রিয়ার রাস্ট্রায়ত্ব টেলিভিশনে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে অস্ট্রিয়ার শীর্ষ মহামারী রোগ বিশেষজ্ঞ গার্টলহনার বলেন, করোনার সংক্রমণের অস্বাভাবিক বিস্তার লাভের পর কয়েকটি রাজ্যে সম্পূর্ণ লকডাউনের সম্ভাবনা উড়িয়ে দেয়া যায় না।

এপিডেমিওলজিস্ট গার্টলহেনার উদ্বেগের সাথে করোনার বর্তমান বিস্তার পর্যবেক্ষণ করে চলেছেন বলে জানিয়েছেন।তিনি বলেন, এখন যদি আরও বেশি লোককে টিকা দেওয়া হয় তবে এটি কয়েক সপ্তাহের মধ্যে কার্যকর হবে।গতকাল থেকে আজ ২৪ ঘন্টায় দেশে করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে প্রায় ১০,০০০ হাজার। যা বেশ উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ড্যানুব ইউনিভার্সিটি ক্রেমসের (NÖ) মহামারী বিশেষজ্ঞ জেরাল্ড গার্টলহেনার আরও বলেন ইতিমধ্যেই সরকার বিষয়টি নিয়ে দেশের রাজ্য গভর্নরদের সাথে বৈঠকের পর কিছু বিধিনিষেধ ও সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছেন।তিনি বলেন, অস্ট্রিয়ার সংক্রমণ রোগ বিশেষজ্ঞরা সরকারের গৃহীত নতুন পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছেন।

এদিকে অস্ট্রিয়ার রাষ্ট্রবিজ্ঞানী পিটার ফিলজমায়ার বলেছেন যে, সম্প্রতি করোনার সাথে একটি নির্দিষ্ট “অযত্ন” তৈরি হয়েছে – যা সম্ভবত এই কারণে যে মহামারীটির সমাপ্তি বেশ কয়েকবার মিথ্যাভাবে ঘোষণা করা হয়েছিল। গত কয়েকদিনে ভিয়েনা এবং আপার অস্ট্রিয়া কঠোর ব্যবস্থার ঘোষণা দিয়েছে এবং এখন ফেডারেল সরকারেও একটি “আলোকিতকরণ” হয়েছে।

তৃতীয় ডোজ দ্রুত কাজ করতে পারে, নতুন ব্যবস্থা অবশ্যই সংক্রমণের সংখ্যা কমিয়ে দেবে, বলেছেন মহামারী বিশেষজ্ঞ গার্টলহেনার।  তিনি শুধু অবাক যে তৃতীয় পক্ষের টিকা দেওয়ার গুরুত্ব আর জোর দেওয়া হয়নি।যদি প্রত্যেকে টিকা পান যারা আগে এটি করেননি, এটি ছয় থেকে আট সপ্তাহের জন্য কাজ করবে না।এটি আরও দ্রুত কাজ করবে যদি ৬ মাস আগে যাদের টিকা দেওয়া হয়েছিল তাদের এখন একটি বুস্টার দেওয়া হয়।

টিকাটি এখনও শুধুমাত্র ১২ বছর বা তার বেশি বয়সের লোকেদের জন্য অনুমোদিত – ভিয়েনা ৫ থেকে ১১ বছর বয়সী শিশুদের জন্য অফ-লেবেল টিকা সহজ করে তোলে। Gartlehner এর মতে, এটি “একেবারে সুপারিশযোগ্য” – বিশেষ করে এমন শিশুদের জন্য যাদের অন্তর্নিহিত রোগ রয়েছে এবং যাদের বিশেষ করে গুরুতর কোর্সের সাথে করোনা সংক্রমণ রয়েছে।এখনও সংক্রমণের বিস্ফোরণের আশঙ্কা রয়েছে, এটা কি অনুমেয় যে, আপনি সাধারণ লকডাউন ছাড়াই এটি করতে পারেন?  টিকা না দেওয়া লোকেদের আর রেস্তোরাঁ এবং ইভেন্টে যেতে দেওয়া হয় না, তবে এখনও দোকানে এবং পাবলিক ট্রান্সপোর্টে দেখা হয় বা ব্যক্তিগতভাবে সংক্রামিত হতে পারে।

গার্টলহনারের এই বিষয়ে খারাপ খবর রয়েছে: আপার অস্ট্রিয়া এবং সালজবুর্গের মতো কিছু রাজ্যে একটি সাধারণ লকডাউন উড়িয়ে দেওয়া যায় না।  যদি সংক্রমণের বিস্তার আগের মতো বৃদ্ধি অব্যাহত থাকে তবে “এদের চারপাশে কোনও পাওয়া যাবে না”।আপনি যদি এখনও পর্যটনের জন্য শীতের মৌসুম বাঁচাতে চান এবং লকডাউনের বিরুদ্ধে সিদ্ধান্ত নিতে চান তবে আপনাকে এখন খুব কাছ থেকে উন্নয়নগুলি দেখতে হবে।

আজ অস্ট্রিয়ায় নতুন করে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন মহামারী শুরুর পর থেকে সর্বোচ্চ ৯,৯৪৩ জন এবং আজ মৃত্যুবরণ করেছেন ৩১ জন। রাজধানী ভিয়েনায়  আজ নতুন করে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন ১,১২১ জন।

অস্ট্রিয়ার অন্যান্য ফেডারেল রাজ্যের মধ্যে OÖ রাজ্যে ২,৭৯১ জন, NÖ রাজ্যে ১,৭৮৮ জন, Steiermark রাজ্যে ১,২০৭ জন, Salzburg রাজ্যে ১,০২১ জন, Tirol রাজ্যে ৭৯৫ জন, Kärnten রাজ্যে ৬৩৬ জন, Vorarlberg রাজ্যে ৩৩০ জন এবং  Burgenland রাজ্যে ২৫৪ জন নতুন করে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন।

অস্ট্রিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী আজ সমগ্র অস্ট্রিয়ায় করোনার প্রতিষেধক টিকা দেয়া হয়েছে ২২,৩৫২ ডোজ এবং এই পর্যন্ত মোট করোনার প্রতিষেধক টিকাদানের পরিমাণ ১,১২,৫৩,৩৮৮ ডোজ।

অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত করোনার প্রতিষেধক টিকার সম্পূর্ণ ডোজ গ্রহণ করেছেন ৫৭ লাখ ৫৭ হাজার ৪৪৬ জন, যা দেশের মোট জনসংখ্যার শতকরা ৬৪,৫ শতাংশ।

অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮,৭৫,৩৩৩ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ১১,৪৮২ জন।করোনার থেকে এই পর্যন্ত আরোগ্য লাভ করেছেন ৭,৯৫,৮৩৫ জন। বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৬৮,০১৬ জন। এর মধ্যে আইসিইউতে আছেন ৩৫৯ জন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ১,৮৬৫ জন। বাকীরা নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন।

কবির আহমেদ/ইবিটাইমস

EuroBanglaTimes

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »