সমগ্র অস্ট্রিয়াকে করোনার সংক্রমণের সর্বোচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ “লাল জোন” ঘোষণা

ভিয়েনায় শীঘ্রই ৫ থেকে ১২ বছরের শিশুদেরও করোনার প্রতিষেধক টিকা দেয়া হবে

ইউরোপ ডেস্কঃ অস্ট্রিয়ান সংবাদ সংস্থা এপিএ জানিয়েছে আজ বৃহস্পতিবার অস্ট্রিয়ার করোনার ট্র্যাফিক লাইট কমিশন তাদের নিয়মিত সাপ্তাহিক বৈঠকে সমগ্র অস্ট্রিয়াকে করোনার সংক্রমণ বিস্তারের অতি ও সর্বোচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ “লাল জোন” ঘোষণা করেছেন।

গত সপ্তাহে অস্ট্রিয়ার ৯ টি রাজ্যের মধ্যে পূর্বাঞ্চলের ২টি রাজ্য ভিয়েনা ও বুর্গেনল্যান্ড কমলা জোনে রেখে বাকী ৭ টি রাজ্যকে লাল জোন ঘোষণা করা হয়েছিল।আজ এই দুই রাজ্যেও প্রতি ১,০০,০০০ (এক লাখ) জনপদে করোনার সংক্রমণ ১০০ জনের অনেক উপরে উঠে যাওয়ায় “কমলা জোন” থেকে “লাল জোনে” স্থানান্তরিত করা হল।

করোনার ট্র্যাফিক লাইট কমিশনের তথ্য অনুযায়ী আজ ফেডারেল রাজধানী ভিয়েনায় প্রতি এক লাখ জনপদে করোনায় আক্রান্ত ১১৪ জন। আর আজ অস্ট্রিয়ার মধ্যে সবচেয়ে বেশী আক্রান্ত Tirol রাজ্যে  প্রতি এক লাখ জনপদে ৫৮১ জন।

এদিকে অস্ট্রিয়ার জনপ্রিয় দৈনিক পত্রিকা Kronen Zeitung জানিয়েছেন আজ অস্ট্রিয়ার রাজধানী রাজ্য ভিয়েনার সিটি হলে রাজ্যের গভর্নর ও ভিয়েনা সিটি মেয়র মিখাইল লুডভিগ তার রাজ্যের বিশেষজ্ঞদের সাথে এক বৈঠকে মিলিত হন।

বৈঠকের পর মেয়র মিখাইল লুডভিগ এক সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি তার রাজ্যের গ্যাসট্রোনমি,দেহ বান্ধব প্রতিষ্ঠান যেমন চুল কাটা,ম্যাসেজ ইত্যাদিতে এবং ২৫ জনের বেশী মানুষের অনুষ্ঠানে ২-জি (2G-REGEL) নিয়ম বাধ্যতামূলক করার কথা জানিয়েছেন। তাছাড়াও তিনি আরও জানান ভিয়েনার অভিভাবকরা ইচ্ছা করলে তাদের ৫ থেকে ১২ বছরের শিশুদেরও করোনার প্রতিষেধক টিকা দিতে পারবেন। এক্ষেত্রে তিনি পারিবারিক চিকিৎসক বা ভিয়েনা শহরের যেকোন টিকাদান কেন্দ্রের সাথে যোগাযোগ করতে অনুরোধ করেছেন।

পত্রিকাটি আরও জানিয়েছে করোনার, সংক্রমণের বিস্তার বিস্ফোরণের মত অব্যাহত বৃদ্ধি পাওয়ায় ভিয়েনা তার করোনার বিধিনিষেধ ব্যবস্থা আরও তীক্ষ্ণ করেছে।তবে মেয়র জানিয়েছেন ফেডারেল রাজধানী ভিয়েনা রাজ্যে অস্ট্রিয়ান ফেডারেল সরকারের ঘোষিত চতুর্থ ধাপ থেকেই এই বিধিনিষেধ কার্যকর হবে।তার মানে আগামী সপ্তাহের শেষ থেকে এই বিধিনিষেধ কার্যকর হচ্ছে।

ফলে ভিয়েনায় শুধুমাত্র যারা করোনার প্রতিষেধক টিকা গ্রহণ করেছেন এবং করোনার থেকে সম্প্রতি আরোগ্য লাভ করেছেন কেবল তারাই রেস্টুরেন্ট সহ সকল খাবারের দোকান,চুল কাটার সেলূন,ম্যাসেজ সহ যেকোন দেহ বান্ধব প্রতিষ্ঠানে প্রবেশ করতে পারবেন।রেস্তোরাঁয় বা হেয়ারড্রেসারে প্রবেশ কেবলমাত্র তাদের জন্যই সম্ভব হবে যাদের টিকা দেওয়া হয়েছে বা সুস্থ হয়ে উঠেছে।  এছাড়াও, লক্ষ্য হল পাঁচ থেকে বারো বছর বয়সী শিশুদের টিকা দিতে সক্ষম করা।

বিশেষত, মেয়র মিখাইল লুডভিগ পাঁচ-পর্যায়ের পরিকল্পনার পর্যায় ৪ এগিয়ে আনার পক্ষে কথা বলেছিলেন, যা অস্ট্রিয়ান হাসপাতালে নিবিড় পরিচর্যা শয্যা ব্যবহারের উপর নির্ভরশীল – পুরো অস্ট্রিয়া জুড়ে।  পরের সপ্তাহের শেষে, তিনি ইতিমধ্যে ভিয়েনায় এটি অনুশীলন করবেন – গ্যাস্ট্রো বা বডি-হ্যাগিং পরিষেবা প্রদানকারীদের অ্যাক্সেস কেবলমাত্র তাদেরই দেওয়া হবে যাদের ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে বা যারা করোনার থেকে সুস্থ হয়েছেন। মেয়র মিখাইল লুডভিগ আজ আরও জানান,যে নির্দিষ্ট কাঠামোর শর্তাবলী অন্যান্য এলাকায় 2G নিয়ম প্রয়োগ করা হবে তা আগামী কয়েক দিনের মধ্যে জানানো হবে। নিম্নলিখিত বিধিনিষেধ সমূহ বর্তমানে ভিয়েনায় চলমান আছে,

কেনা-কাটায় ও গণপরিবহনে এফএফপি(FFP2) মাস্ক পড়া বাধ্যতামূলক।

২জি নিয়ম (2G) অর্থাৎ করোনার টিকা দেয়া ও করোনার থেকে সম্প্রতি আরোগ্য লাভকারী ব্যতীত অন্যান্যদের রাতের গ্যাসট্রোনমি সহ সকল ইভেন্টে প্রবেশ নিষেধ।৫০০ জনের উপরে মানুষের ইভেন্টেও এই নিয়ম মেনে চলার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। ২,৫ জি (2.5G) নিয়ম: টিকা দেওয়া এবং পুনরুদ্ধার করা ছাড়াও, শুধুমাত্র PCR টেস্ট পরীক্ষা প্রমাণ বৈধ।

Kronen Zeitung বলেন,ভিয়েনার মেয়র মিখাইল লুডউইগ পাঁচ থেকে বারো বছর বয়সী শিশুদের করোনভাইরাস বিরুদ্ধে টিকা দেওয়ার জন্য সক্ষম করতে চায়, তবে অবশ্যই, তাদের পিতামাতা এতে সম্মতি দিতে হবে।ফেডারেল রাজধানীতে চারজন সাধারণ অনুশীলনকারী চিকিৎসক ইতিমধ্যেই শিশুদের জন্য টিকা প্রদান করবেন বলে নির্ধারিত করা হয়েছে।তবে মেয়র বলেন শীঘ্রই চাহিদা অনুযায়ী শিশুদের টিকাদান কর্মসূচি আরও বর্ধিত করা হবে।

এপিএ জানিয়েছেন, ছোট শিশুদের জন্য টিকা অনুমোদন মুলতুবি আছে। তথাকথিত অফ-লেবেল টিকা সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হলে,অস্ট্রিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয় বলেন যে, ভিয়েনার পরিকল্পনাগুলি বিস্তারিতভাবে উপলব্ধ হলেই একটি সঠিক মূল্যায়ন সম্ভব হবে।

বর্তমানে অস্ট্রিয়ায় বারো বছরের কম বয়সী শিশুদের জন্য টিকা দেওয়ার কোনো অনুমোদন নেই।  ইউরোপীয় মেডিসিন এজেন্সি (EMA) দ্বারা শিশুর টিকা অনুমোদিত হলেই শুধুমাত্র জাতীয় টিকাদান কমিটির সুপারিশ থাকবে। তবে এটি “শীঘ্রই প্রত্যাশিত” স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের মতে। এর পরে, পাঁচ থেকে এগারো বছর বয়সী শিশুদের জন্য টিকা দেওয়া সম্ভব হবে।বর্তমানে অস্ট্রিয়ায় ১২ থেকে ১৬ বছর বয়সীদের টিকাদান কর্মসূচি গত গ্রীষ্ম থেকেই শুরু করা হয়েছে।

আজ অস্ট্রিয়ায় নতুন করে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন ৮,৫৯৪ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ১৯ জন।রাজধানী ভিয়েনায় আজ নতুন করে করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন ১,৪৫৩ জন।

আজ অস্ট্রিয়ার ফেডারেল রাজ্য সমূহের মধ্যে সবচেয়ে বেশী করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন অস্ট্রিয়ার Oberösterreich (ÖO) রাজ্যে ২,৩১৭ জন, NÖ রাজ্যে ১,৫১৮ জন, Steiermark রাজ্যে ১,১০১ জন, Salzburg রাজ্যে ৭০২ জন, Tirol রাজ্যে ৫৮৬ জন, Kärnten রাজ্যে ৪০২ জন, Vorarlberg রাজ্যে ৩৪৩ জন এবং Burgenland রাজ্যে ১৭২ জন নতুন করে করোনা ভাইরাসের ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টে সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন।

অস্ট্রিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী আজ সমগ্র দেশে করোনার প্রতিষেধক টিকা দেয়া হয়েছে মাত্র ১৭,৩৯০ ডোজ এবং মোট টিকাদানের পরিমাণ ১,১২,১১,৮০২ ডোজ। অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত করোনার প্রতিষেধক টিকার সম্পূর্ণ ডোজ গ্রহণ করেছেন মোট ৫৭ লাখ ৪০ হাজার ২২৫ জন,যা দেশের মোট জনসংখ্যার শতকরা ৬৪,৩ শতাংশ।

অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮,৫৬,০০২ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ১১,৪১৯ জন।অস্ট্রিয়ায় করোনার থেকে আরোগ্য লাভ করেছেন মোট ৭,৮৭,৮৩৭ জন। অস্ট্রিয়ায় বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৫৬,৭৪৬ জন। এর মধ্যে আইসিইউতে আছেন ৩৫২ জন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ১,৮২৬ জন। বাকীরা নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন।

কবির আহমেদ/ইবিটাইমস

EuroBanglaTimes

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »