নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম টি-২০ জয় বাংলাদেশের

স্পোর্টস ডেস্ক: বোলারদের নৈপুন্যে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টুয়েন্টি ফরম্যাটে প্রথম জয়ের দেখা পেলো বাংলাদেশ। চলমান পাঁচ টি-টুয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে কিউইদের ৭ উইকেটে হারিয়েছে বাংলাদেশ। এই জয়ের ফলে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল টাইগাররা।

মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় সফরকারিরা। তবে, বাংলাদেশী বোলিং তোপে মাত্র ৬০ রানে গুটিয়ে যায় সফরকারী নিউজিল্যান্ড। নিজেদের টি-টুয়েন্টি ইতিহাসে এটিই সর্বনিম্ন রান কিউইদের। জবাবে পাঁচ ওভার বাকী রেখে জয় নিশ্চিত করে বাংলাদেশ।

ইনিংসের শুরুতেই অফ-স্পিনার মাহেদি হাসানের হাতে বল তুলে দেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। ইনিংসের তৃতীয় বলেই দলকে উইকেট শিকারের আনন্দে নাচিয়ে  তোলেন মাহেদি। অভিষেক ম্যাচ খেলতে নামা রাচিন রবীন্দ্রকে খালি হাতে আউট করেন তিনি।

ম্যাচের দ্বিতীয় ওভারে স্পিনার নাসুম আহমেদকে আনেন মাহমুদুল্লাহ। আর তৃতীয় ওভারে আঘাত হানেন সাকিব আল হাসান। দুর্দান্ত ডেলিভারিতে উইং ইয়ংকে বোল্ড করেন সাকিব। খেলার চতুর্থ ওভারে জোড়া উইকেট শিকার করেন নাসুম । কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমকে ১ ও টম ব্লান্ডেলকে ২ রানে থামান নাসুম। এতে ৪ ওভার শেষে ৯ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে মহাবিপদে পড়ে নিউজিল্যান্ড।

এ অবস্থায় দলকে বিপদমুক্ত করার চেষ্টা করেন অধিনায়ক লাথাম ও হেনরি নিকোলস। সর্তকতার সাথে খেলে ১০ ওভার শেষে নিউজিল্যান্ডের রান উঠে মাত্র ৪০ রান। তবে ১১তম ওভারে প্রথমবারের মত আক্রমনে এসেই উইকেট তুলে নেন মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন। ২৫ বলে ১টি চারে ১৮ রান করা লাথাম শিকার হন সাইফুদ্দিনের। একই ওভারে নিকোলসের বিদায়ও নিশ্চিত করেন সাইফুদ্দিন। ২৪ বলে ১টি চারে ১৭ রান করেন নিকোলস। এতে ৪৯ রান তুলতেই  ৭ উইকেট হারায় নিউজিল্যান্ড। এরপর ১১ রানের মধ্যে শেষ ৩ উইকেট হারায় নিউজিল্যান্ড।  শেষ পর্যন্ত ১৬ দশমিক ৫ ওভারে ৬০ রানে থামে কিউই ইনিংস। নিউজিল্যান্ডের শেষ তিন উইকেট উইকেটই পকেটে ভরেছেন কাটার মাস্টার মুস্তাফিজ। ১৩ রানে ৩ উইকেট নেন তিনি।

জয়ের জন্য ৬১ রানের সহজ টার্গেটে শুরুটা ভালো হয়নি বাংলাদেশেরও। ৭ রানের মধ্যে প্যাভিলিয়নে ফিরেন দুই ওপেনার নাইম শেখ  ও লিটন দাস। দু’জনই ১ রান করে করেন। এরপর শুরুর ধাক্কা কাটিয়ে উঠেন সাকিব ও মুশফিকুর রহিম। তবে দশম ওভারেই থামতে সাকিবকে। রবীন্দ্রর শিকার হওয়ার আগে  ৩৩ বলে ২টি চারে দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ২৫ রান করেন ম্যাচ সেরা হওয়া সাকিব। তৃতীয় উইকেটে মুশফিকের সাথে ৪১ বলে ৩৪ রান যোগ করেন তিনি। দলীয় ৩৭ রানে সাকিবের বিদায়ের পর উইকেটে আসেন অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ। মুশফিককে নিয়ে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন অধিনায়ক। ২টি চারে ২২ বলে অপরাজিত ১৪ রান করেন মাহমুদুল্লাহ। ১টি চারে ২৬ বলে ১৬ রানে অপরাজিত থাকেন মুশফিক।

আগামী ৩ সেপ্টেম্বর একই ভেন্যুতে সিরিজের দ্বিতীয় টি-টুয়েন্টি অনুষ্ঠিত হবে।

ডেস্ক/ইবিটাইমস/এমএইচ

EuroBanglaTimes

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »