ইতালি ইউরোপীয় ইউনিয়ন,ব্রিটেন ও ইসরাইলের জন্য কোয়ারেন্টাইন বাতিল করেছে

ইতালি করোনার বিধিনিষেধ শিথিলতার ঘোষণা 

ইউরোপ ডেস্কঃ আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা এএফপি জানিয়েছেন যে,আজ শুক্রবার ইতালির সরকার বলেছে যে তারা ইউরোপীয় ইউনিয়ন, ব্রিটেন এবং ইসরাইল থেকে আগত পর্যটকদের জন্য পৃথকীকরণ বা কোয়ারেন্টাইন এর প্রয়োজনীয়তাগুলি বাতিল করেছে। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ কিছুটা হ্রাস পাওয়ায়  ইতালির সরকার এখন বিধিনিষেধ ধীরে ধীরে সহজতর করার চেষ্টা করছে। ইতালির সরকার গ্রীষ্মের ছুটির পূর্বে তার দেশের পর্যটক শিল্পকে স্বাভাবিক করার চেষ্টা করছেন।

ইতালি পৃথিবীর মধ্যে অন্যতম একটি পর্যটন  সমৃদ্ধ দেশ। করোনার জন্য ইতালির পর্যটন শিল্প প্রায় বন্ধ হয়ে পড়েছে। ইতালির পর্যটক মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুসারে শুধুমাত্র ইতালির ঐতিহ্যবাহী ভেনিস নগরীতেই দৈনিক পঞ্চাশ হাজার পর্যটক প্রতিদিন দর্শনে আসতেন।

রবিবার ১৬ মে থেকে কার্যকর হওয়া নতুন নিয়মের আওতায় ইতালি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র,কানাডা, জাপান এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতে এবং তথাকথিত “কোভিড-মুক্ত” দেশেও তাদের আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বাড়িয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা করছে। তবে একই সময়ে, ব্রাজিল থেকে আগতদের জন্য বিধিনিষেধ আরও কঠোরতর করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।

ইতালি সরকারের জনৈক মুখপাত্র বলেছেন, “স্বাস্থ্যমন্ত্রী রবার্তো স্পেরেনসা একটি আদেশে স্বাক্ষর করেছেন যা ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং শেনজেন অঞ্চলের দেশগুলির পাশাপাশি ব্রিটেন এবং ইসরাইল থেকে আগতদের জন্য বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন বাতিল ঘোষণা করেছেন।

সরকারের মুখপাত্র আরও জানান, ইতালি তার পর্যটন শিল্প ফিরিয়ে আনতে তার করোনার বিধিনিষেধ আরও সহজতর করতে যাচ্ছে।

ইতালির স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছেন যে,ইতালির প্রধানমন্ত্রী মারিও ড্রাগি বলেন,যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা এবং জাপানের পর্যটকদের যদি কেহ করোনার ভ্যাকসিন না নিয়ে থাকেন,তাহলেও কোয়ারেন্টাইন ছাড়াই ইতালির দর্শনীয় স্থান পরিদর্শন করতে পারবেন। তিনি আরও জানান, বর্তমানে সরকারের প্রথম পদক্ষেপ গ্রীষ্মের পূর্বেই ইতালির অধিকাংশ নাগরিকদের করোনার ভ্যাকসিন সম্পন্ন করা। তিনি এও ইঙ্গিত দিয়েছিলেন যে বিদেশ থেকে প্রবেশের ক্ষেত্রে ইতালি তার কঠোর বিধিনিষেধগুলি খুব দ্রুত শিথিলকরণ করার পরিকল্পনা করছে।

গত সপ্তাহান্তে পররাষ্ট্রমন্ত্রী লুইজি ডি মাইও পরামর্শ দিয়েছিলেন যে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ব্লকের বাইরে থেকে ভ্যাকসিন বা পরীক্ষিত যাত্রীদের পুনরায় ইতালিতে প্রবেশের অনুমতি দেওয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছে। সাম্প্রতিক দিনগুলিতে সরকারী মন্ত্রীরা বারবার ইঙ্গিত দিয়েছেন যে, বিভিন্ন দেশের জন্য ইতালির ভ্রমণ বিধিমালার পরিবর্তন করা হচ্ছে শীঘ্রই।

শিল্পোন্নত জি-৭ দেশ কানাডা, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, জাপান, যুক্তরাজ্য,যুক্তরাষ্ট্র এবং ইইউ দেশের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ আগামী ১১ থেকে ১৩ ই জুনের মধ্যে বৈঠকে বসবেন এবং এই সমস্ত দেশের পর্যটন শিল্পের বিষয়টি মূল এজেন্ডায় থাকার বিষয়টি নিশ্চিতভাবেই রয়েছে। ইতালির প্রধানমন্ত্রী মারিও ড্রাগি আরও বলেছেন যে,ইউরোজোন তৃতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির পুনরুদ্ধারের জন্য পর্যটকদের প্রত্যাবর্তন গুরুত্বপূর্ণ, যা করোনা ভাইরাস দ্বারা ক্ষতিগ্রস্থ ইইউ দেশগুলির  অর্থনৈতিক মন্দার পুনরুদ্ধার করতে সহায়তা করবে।

ইতালির সংক্রমণের হার সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলিতে হ্রাস পেয়েছে। বর্তমানে ইতালিতে করোনার ভ্যাকসিন প্রদানের গতি অনেক বৃদ্ধি করা হয়েছে। ইতালিতে এই পর্যন্ত ৬০ মিলিয়ন জনসংখ্যার মধ্যে ২৬ মিলিয়ন ভ্যাকসিন প্রদান করা হয়েছে। এর মধ্যে ৮ মিলিয়ন মানুষ করোনার উভয় ডোজ গ্রহণ করেছেন।

আজ অস্ট্রিয়ায় নতুন করে সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন ৮৮৭ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ১১ জন। রাজধানী ভিয়েনায় আজ নতুন করে সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন ২১১ জন। অন্যান্য রাজ্যের মধ্যে Steiermark রাজ্যে ১৪৯ জন,OÖ  রাজ্যে ১৩২ জন,NÖ রাজ্যে ১১৪ জন, Tirol রাজ্যে ৮১ জন,Vorarlberg রাজ্যে ৭৯ জন, Kärnten রাজ্যে ৭০ জন,Salzburg রাজ্যে ৩৪ জন এবং Burgenland রাজ্যে ১৭ জন নতুন করে করোনায়সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছে।

অস্ট্রিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী আজ দেশে করোনার টিকা বা ভ্যাকসিন প্রদান করা হয়েছে ৩৮,৩৭১ জন। এই পর্যন্ত অস্ট্রিয়ায় করোনার মোট ভ্যাকসিন প্রদান করা হয়েছে ৩৮,৮০,৩৭৭ জন।

অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৬,৩৫,৭৮০ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ১০,৪৫৫ জন।

করোনার থেকে এই পর্যন্ত আরোগ্য লাভ করেছেন মোট ৬,১২,৫২৩ জন। বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ১২,৮০২ জন। এর মধ্যে ক্রিটিক্যাল অবস্থার মধ্যে আইসিইউতে আছেন ৩২২ জন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ৯৯২ জন। বাকীরা নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন।

কবির আহমেদ/ ইবি আহমেদ

EuroBanglaTimes

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »