অরেঞ্জ জোনে অস্ট্রিয়ার পূর্বাঞ্চলের রাজ্য লোয়ার অস্ট্রিয়া এবং বুর্গেনল্যান্ড

অস্ট্রিয়ার করোনা কমিশন লোয়ার অস্ট্রিয়া (NÖ) ও বুর্গেনল্যান্ড রাজ্যকে লাল জোন থেকে কমলা জোনে স্থানান্তর করেছে

ইউরোপ ডেস্কঃ অস্ট্রিয়ার করোনা ভাইরাসের ট্র্যাফিক লাইট কমিশন তাদের সাপ্তাহিক নিয়মিত বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন অস্ট্রিয়ার রাস্ট্রীয় টেলিভিশন নেটওয়ার্ক ORF এর বিশেষ প্রতিবেদনে।

করোনা কমিশন অবশ্য জানিয়েছেন অস্ট্রিয়ার পূর্বাঞ্চলের রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি খুবই ভালোর দিকে।বুর্গেনল্যান্ড রাজ্যকে সম্ভবত আগামী সপ্তাহে করোনার কমলা থেকে হলুদ জোনে স্থানান্তর করার ইঙ্গিত দিয়েছেন।

করোনা কমিশন আরও জানান যে,অস্ট্রিয়ার পশ্চিম- দক্ষিণের রাজ্য Vorarlberg,Tirol এবং Steiermark রাজ্য ছাড়া অন্যান্য রাজ্য বিপদাঞ্চল থেকে সরে আসলেও এই সপ্তাহে লাল জোনেই থাকছে। তবে বুর্গেনল্যান্ড রাজ্য ইতিমধ্যেই হলুদ হওয়ার পথে।

অস্ট্রিয়ার করোনা কমিশনের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে অস্ট্রিয়ার মধ্যে বর্তমানে পূর্বাঞ্চলের বুর্গেনল্যান্ড রাজ্য করোনার সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে সবচেয়ে ভালো অবস্থায় আছে। বুর্গেনল্যান্ড রাজ্যে বর্তমানে প্রতি ১,০০,০০০ জনপদে করোনার সংক্রমণ ৫০ জনের নীচে নেমে এসেছে।

করোনা কমিশন তাদের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন,করোনা পরিস্থিতির এই প্রবণতা অব্যাহত থাকলে ভিয়েনা,ওপার অস্ট্রিয়া(OÖ), সালজবুর্গ এবং কারিন্থিয়া( Kärnten) রাজ্য লাল জোন থেকে কমলাতে স্থানান্তর হতে পারে আগামী সপ্তাহে।

অস্ট্রিয়ার Vorarlberg রাজ্য সবার পূর্বে ভাল অবস্থায় ফিরে আসলেও বর্তমানে সবচেয়ে খারাপ অবস্থায় আছে। এই রাজ্যে বর্তমানে প্রতি ১,০০,০০০ লাখ জনপদে করোনার সংক্রমণ ১৫০ জনের বেশী। এই রাজ্য গত তিন সপ্তাহের পূর্বে সংক্রমণ ১০০ জনের নীচে চলে আসায় করোনার কমলা জোনে ফিরে এসেছিল।

সব মিলিয়ে অস্ট্রিয়ার করোনা কমিশনের দৃষ্টিভঙ্গি আশাবাদী। নিবিড় পরিচর্যা ইউনিটগুলিতে শিথিলতার পরিপ্রেক্ষিতে, যেখানে সমস্ত ফেডারেল রাজ্য এখন ৩৩ শতাংশের সমালোচনামূলক চিহ্নের নিচে রয়েছে,১৫  মে থেকে প্রস্থান নিষেধাজ্ঞাগুলি আর প্রয়োজনীয় বিবেচিত হবে না। তাই সরকারের সিদ্ধান্ত মোতাবেক আগামী ১৯ মে থেকে সবকিছু খোলার পরিকল্পনা “ন্যায়সঙ্গত” বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

ব্যবস্থা “এখনও প্রাসঙ্গিক” সংক্রমণের সামগ্রিক সংখ্যা হ্রাস পাচ্ছে এই ঘটনাটি ইতিমধ্যে দেখা যায় যে কেবল চারটি জেলা বা অঞ্চলই ১৪ দিনের একটি ক্রমবর্ধমান প্রবণতা দেখায়, যথা লিলিয়ানফেল্ড, কির্চডর্ফ আন ডের ক্রেমস, গ্রোয়েস ওয়ালসারেল এবং ইমস্ট। পরের জেলাটিও দেশব্যাপী সর্বাধিক ঘটনা সহ একটি (২৬১.৩)। লোয়ার অস্ট্রিয়ার (NÖ) করোনার এই ডাউনগ্রেডিং রাজ্যের জনগণের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ সংকেত হিসাবে দেখছেন রাজ্যের স্বাস্থ্য কাউন্সিলর উলরিকে কনিগসবার্গার- লুডভিগকে (SPÖ)। তিনি জানান,এই রাজ্যের “এপ্রিলের লকডাউনটি সঠিক এবং গুরুত্বপূর্ণ ছিল”।  সংক্রমণ প্রতিরোধের ব্যবস্থাগুলি আগামী সপ্তাহগুলিতে “বিশেষত ব্যক্তিগত কার্যক্রম বা মিটিংগুলির জন্য” প্রাসঙ্গিক হতে থাকবে।

আজ অস্ট্রিয়ায় নতুন করে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন ৯৩৩ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ১৬ জন।

রাজধানী ভিয়েনায় আজ নতুন করে সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন ১৬৬ জন। অন্যান্য রাজ্যের মধ্যে OÖ রাজ্যে ১৫৫ জন,Steiermark রাজ্যে ১৩৭ জন,NÖ রাজ্যে ১৩৪ জন,Tirol রাজ্যে ৯৯ জন,Salzburg রাজ্যে ৮৭ জন,Vorarlberg রাজ্যে ৭১ জন,Kärnten রাজ্যে ৬৭ জন এবং Burgenland রাজ্যে ১৭ জন নতুন করে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন।

অস্ট্রিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুসারে আজ দেশে করোনার ভ্যাকসিন প্রদান করা হয়েছে ৯৭,৭৩৭ ডোজ।অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত করোনার মোট ভ্যাকসিন প্রদান করা হয়েছে ৩৮,৪২,০০৬ ডোজ।

অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৬,৩৪,৮৯৩ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন মোট ১০,৪৪৪ জন। করোনার থেকে এই পর্যন্ত আরোগ্য লাভ করেছেন মোট ৬,১১,২৫৪ জন। বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ১৩,১৯৫ জন। এর মধ্যে ক্রিটিক্যাল অবস্থার মধ্যে আইসিইউতে আছেন ৩১৬ জন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ১,০৪৬ জন। বাকীরা নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন।

কবির আহমেদ/ ইবি টাইমস

EuroBanglaTimes

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »