ভারতে করোনার সংক্রমণের সুনামি অব্যাহত

আজও আক্রান্ত রেকর্ড ৪ লাখের উপরে এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৩,৫২৩ জন

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ আজ শনিবার ১লা মে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে বৈশ্বিক মহামারী করোনায় বিশ্বে একদিনে সংক্রমণের সর্বোচ্চ সংখ্যক রেকর্ড হয়েছে ভারতে।

আজ সমগ্র ভারতে নতুন করে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন ৪ লাখ ১ হাজার ৯৯৩ জন । এটিই এখন পর্যন্ত দেশটিতে ও বিশ্বে একদিনে সর্বোচ্চ শনাক্ত।

ভারতে এই পর্যন্ত মোট শনাক্ত হয়েছেন ১ কোটি ৯১ লাখ ৬৪ হাজার ৯৬৯ জন। সংক্রমণের দিক থেকে বিশ্বের মধ্যে ভারতের অবস্থান বর্তমানে দ্বিতীয়তে।

একই সময়ে আজ করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আরও ৩ হাজার ৫২৩ জন মানুষ। করোনায় এখন পর্যন্ত ভারতে মারা গেছেন ২ লাখ ১১ হাজার ৮৫৩ জন। আজ করোনার থেকে আরোগ্য লাভ করেছেন ২ লাখ ৯৯ হাজার ৯৮৮ জন । ভারতে এই পর্যন্ত করোনার থেকে আরোগ্য লাভ করেছেন ১ কোটি ৫৬ লাখ ৮৪ হাজার ৪০৬ জন মানুষ। ভারতে বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৩২ লাখ ৬৮ হাজার ৭১০ জন।

এনডিটিভির প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে,ভারতের মধ্যে সংক্রমণ সবচেয়ে বেশি মহারাষ্ট্রে। এরপর রয়েছে কেরালা, কর্ণাটক, উত্তর প্রদেশ, তামিলনাড়ু, দিল্লি, অন্ধ্রপ্রদেশ, পশ্চিমবঙ্গ, ছত্তিশগড় ও রাজস্থান। গত ২৪ ঘণ্টায় মহারাষ্ট্রে শনাক্ত হয়েছেন ৬২ হাজার ৯১৯ জন।

দেশটিতে গত এপ্রিল মাসের মাঝামাঝি থেকেই দৈনিক করোনার সংক্রমণ ২ লাখের বেশি শনাক্ত হচ্ছে। এর মধ্যে গতকাল টানা নবম দিনের মতো দৈনিক শনাক্তের সংখ্যা ৩ লাখেরও বেশি ছিল। আজ তা ছাড়িয়ে হলো ৪ লাখের উপরে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের তথ্য অনুযায়ী, অতীতের রেকর্ড ভেঙে গতকাল দেশটিতে ৩ লাখ ৮৬ হাজার ৪৫২ জনের করোনা শনাক্ত হয়। আজ সেই রেকর্ড ভেঙে শনাক্তের নতুন রেকর্ড গড়ল। ভারতে এখন পর্যন্ত সাড়ে ১৫ কোটি মানুষকে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে বলে জানানো হয়েছে এনডিটিভির প্রতিবেদনে।

ভারতের এই মহা বিপর্যয়ের বিশ্বের বিভিন্ন দেশ সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। প্রথম দেশ হিসাবে সৌদি আরব প্রথম অক্সিজেন পাঠায়। তারপর জার্মানি, যুক্তরাষ্ট্র,ফ্রান্স এবং ইইউ। আজ সংযুক্ত আরব আমিরাত (UEA) একটি সি -১৩০ জাম্বো সামরিক পরিবহণ বিমানে করে অক্সিজেন পাঠিয়েছে। আগামী সপ্তাহে আবারও পাঠানো হবে বলে সংযুক্ত আরব আমিরাতের সরকারের সূত্র জানিয়েছে।

অস্ট্রিয়া ওষুধ ও মেডিকেল সরঞ্জাম পাঠিয়ে সাহায্যের কথা জানিয়েছেন। অস্ট্রিয়ান থেকে সাহায্য ইতিমধ্যেই ভারতের পথে পাঠানো হয়েছে।

পরিসংখ্যান নিয়ে কাজ করা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী, ভারতের মোট জনসংখ্যা ১৩৯ কোটির বেশি। সেখানে প্রতি ১০ লাখ মানুষের মধ্যে গড়ে ২ লাখ ৭ হাজার ২৫৩টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। উল্লেখ্য যে,২০২০ সালের ৩০শে জানুয়ারি ভারতে প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়।

জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটির করোনাভাইরাস রিসোর্স সেন্টারের তথ্য অনুযায়ী, সংক্রমণের দিক থেকে বর্তমানে বিশ্বে ভারতের অবস্থান দ্বিতীয় স্থানে, ভারতের আগে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও পরে ব্রাজিল।

যুক্তরাষ্ট্রের মেরিল্যান্ড রাজ্যের বাল্টিমোরে অবস্থিত জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ কোটি ৯ লাখ ৮৪ হাজার ১২০ জন এবং মারা গেছেন ৩১ লাখ ৭৬ হাজার ২১৪ জন। আর এই পর্যন্ত বিশ্বে করোনার থেকে এই পর্যন্ত আরোগ্য লাভ করেছেন  ৮ কোটি ৭৯ লাখ ২৬ হাজার ৭৮ জন ।

কবির আহমেদ /ইবি টাইমস

EuroBanglaTimes

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »