ভোলায় মার্কেট ও বিপনী বিতানে ভীড়

ভোলা প্রতিনিধি : লক ডাউনের মাঝেই দোকানপাট, শপিংমল খোলার সরকারি নির্দেশনার তৃতীয় দিনে আজ বুধবার সকাল থেকে ভোলায় সব ধরনের দোকান-পাট, মার্কেট ও বিপনী বিতানে চলছে বেঁচা-কেনা। সাধারণ মানুষ গাদাগাদি করে দোকানে কেনাকাটায় হুমরি খেয়ে পরেছে। অধিকাংশ ক্রেতার মধ্যে স্বাস্থ্য সচেতনতা নেই বললেই চলে। আর দোকান গুলোতে হ্যান্ড স্যানিটাইজার থাকলেও তা ব্যবহারে উদ্যোগ নেই ব্যবসায়ীদের।

ভোলা শহরের চক বাজারের ব্যাবসায়ী গোপাল সাহা বলেন, তারা যতটা সম্ভব স্বাস্থ্যবিধি মেনে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করছেন। তবে সাধারণ মানুষের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধির যে সচেতনতা সেটি নেই বললেই চলে।

বাজারে আসা ক্রেতা আকলিমা, জুলেখা ও মরিয়ম বেগম জানালেন, ঈদ উপলক্ষে তারা মার্কেটে কেনাকাটা করতে এসেছেন। তবে দোকান গুলোতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বসার মত জায়গা নেই। পাশাপাশি হ্যান্ড স্যানিটাইজার থাকলেও তা নিজে থেকে ব্যবসায়ীরা ক্রেতাদের দিচ্ছেন না বলে তারা অভিযোগ করেন।

অন্যদিকে সকাল থেকেই ভোলা শহর যানজটের নগরীতে পরিনত হয়েছে। অবাধে চলছে রিকাশা মোটর সাইকেল সহ সবধরনের যানবাহন। অটো রিকশা গুলোতে একজনের বদলে গাদাগাদি করে যাত্রী নিয়ে চলাচল করছে। সামাজিক দুরত্ব মুখে মাস্ক পড়া এসব নিয়ম মানা হচ্ছে না। ফলে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে বলে মনে করছেন সচেতন মহল।

স্বাস্থ্য বিভাগের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, ভোলায় এ পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়েছে ১ হাজার ৭৩০ জন । এর মধ্যে মার্চ মাসে আক্রান্তের সংখ্যা মাত্র ৯৫ জন থাকলেও এপ্রিল মাসে তা পাঁচগুন বেড়ে আক্রান্তের সংখ্যা হয় ৬৩৪ জন। যার মধ্যে ৪৭৩ জনই সদর উপজেলার বাসিন্দা।

ভোলা সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মোঃ এনায়েত হোসেন জানান, সাধারণ মানুষকে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে পুলিশের পক্ষ থেকে ভোলার শহরের ৬টি পয়েন্টে চেক পোস্ট বসানো হয়েছে। এছাড়া গোয়েন্দা পুলিশ ও ট্রাফিক পুলিশ তাদের নিজ নিজ স্থান থেকে সমানতালে কাজ করে যাচ্ছে।

সাব্বির আলম বাবু/ইবি টাইমস

EuroBanglaTimes

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »