কঠিন প্রশিক্ষণ,সহজ যুদ্ধ

চুয়াডাঙ্গা  প্রতিনিধিঃ বাংলাদেশ পুলিশের  ইন্সপেক্টর জেনারেল ড. বেনজীর আহমেদ, বিপিএম(বার) মহোদয়ের নির্দেশনায় জনগণের দোরগোড়ায় পুলিশী সেবা পৌছে দিতে  কনস্টেবল হতে অতিরিক্ত আইজিপি পদমর্যদার পুলিশ সদস্যদের অভ্যন্তরীন সক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে বাৎসরিক কমপক্ষে ৬০ ঘন্টা প্রশিক্ষণ কর্মসূচীর নির্দেশনায় আজ ১৫ মার্চ ২০২১ ইং জেলা পুলিশ, চুয়াডাঙ্গার আয়োজনে পুলিশ লাইন প্যারেড গ্রাউন্ডে রায়ট ড্রিল ও আর্মস হ্যান্ডেলিং প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়।

উক্ত প্রশিক্ষনের শুভ উদ্বোধন করেন চুয়াডাঙ্গা জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার মোঃ জাহিদুল ইসলাম । উদ্বোধনকালে পুলিশ সুপার  বলেন, প্রশিক্ষণ হচ্ছে এমন একটি পরিকল্পিত কার্যক্রম যেখানে একদল মানুষকে একটি নির্দিষ্ট বিষয়ের উপর দক্ষতা বৃদ্ধি করা হয়। প্রশিক্ষণের মাধ্যমে ব্যক্তির কাজের উপর জ্ঞান ও দৃষ্টিভঙ্গীর পরিবর্তন ঘটে। প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে কর্মীর আত্মবিশ্বাস ও সাহস বৃদ্ধি পায়। সঠিক প্রশিক্ষন গ্রহণকারী ব্যক্তিই শত্রুপক্ষের অভিসন্ধি রপ্ত এবং তাৎক্ষনিক আক্রমণ প্রতিহত করতে সক্ষম। আর এ জন্য উত্তম প্রশিক্ষনের বিকল্প নেই। প্রশিক্ষনের মাধ্যমে শারীরিক ও মানসিক ক্ষিপ্রতা, পেশীর ক্ষিপ্রতা, ফুসফুসের শক্তি, সহনশীলতা, দ্রুত চিন্তা ও সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষমতা এবং প্রতিপক্ষের কৌশল ও মনোভাব অনুধাবনের যোগ্যতা অর্জিত হয়। সকল পুলিশ সদস্য কর্তব্যরত অবস্থায় নিজের জানমাল, অপরের জানমাল এবং সরকারী সম্পত্তি রক্ষায় সঠিক সময়ে সঠিক পদক্ষেপ গ্রহণ করাই এ  প্রশিক্ষণের মূল লক্ষ্য।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন)  আবু তারেক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর)  কনক কুমার দাস, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল)  জাহাঙ্গীর আলম, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (দামুড়হুদা সার্কেল)  আবু রাসেল, আরআই  মোঃ হাবিবুর রহমান কাজী সহ প্রশিক্ষণে অংশগ্রহনকারি প্রশিক্ষনার্থীগণ।

সাকিব হাসান /ইবি টাইমস

EuroBanglaTimes

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »