মরুভূমির দেশ সৌদি আরবে ৩১ মার্চ থেকে হাই স্পীড ট্রেন চালু হচ্ছে

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ সৌদি আরব থেকে আরব নিউজ জানিয়েছেন যে,মরুভূমির দেশ সৌদি আরব আগামী ৩১ মার্চ ২০২১ ।

বুধবার থেকে তার দেশে প্রথম বারের মতো অতি দ্রুত ও অত্যাধুনিক “হারমাইন হাই স্পিড ট্রেন”সার্ভিস উদ্বোধন করতে যাচ্ছে। এর ফলে এখন মক্কা থেকে মদিনা যেতে সময় লাগবে মাত্র ৯০ মিনিট। “হারামাইন হাই-স্পীড রেলওয়ে” (হারামাইন বলতে মক্কা ও মদীনা ইসলামিক পবিত্র শহর ২ টিকে বুঝায়) পশ্চিমা রেলপথ বা মক্কা-মদিনা হাই-স্পিড রেলপথ নামেও পরিচিত, এটি ৪৫৩ কিলোমিটার দীর্ঘ (২৮১ মাইল) হাই-স্পীড রেলপথ। এটি জেদ্দার কিং আবদুল্লাহিজ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের (KAIA) সাথে ৪৪৯.২ কিলোমিটার (২৭৯,১ মাইল) প্রধান লাইন এবং ৩,৭৫  কিলোমিটার (২.৩৩ মাইল) শাখা সংযোগ ব্যবহার করে ইসলামের পবিত্র শহর মদিনা ও মক্কার সাথে রাজা আবদুল্লাহ অর্থনৈতিক শহরক সংযুক্ত করেছে। এই দ্রুতগতির অত্যাধুনিক ট্রেনের গতি প্রতি ঘন্টায় প্রায় ৩০০ শত কিলোমিটার।

আরব নিউজ আরও জানান, সৌদি আরবের এই “হারামাইন হাই স্পীড রেল” সার্ভিস আগামী বুধবার ৩১ মার্চ বুধবার থেকে নির্ধারিত গন্তব্যে প্রতিদিন ২৪-৩০ টি যাত্রা নিয়ে তার সার্ভিস শুরু করবে। অবশ্য পবিত্র রমজান মাসে তা বাড়িয়ে প্রতিদিনের যাত্রা ৪০ থেকে ৫৪ তে উন্নীত করা হবে বলে জানিয়েছেন কর্তৃপক্ষ।

এই “হারমাইন হাই স্পীড ট্রেন” সৌদি আরবের বন্দর নগরী জেদ্দার কিং আবদুল আজিজ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে মক্কা, মদিনা এবং কিং আবদুল্লাহ অর্থনৈতিক শহরের স্টেশনের মধ্যে চলাচল করবে। যাত্রীদের সুরক্ষার নিশ্চয়তা দেওয়ার জন্য সব ধরনের আধুনিক সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

ট্রেন অপারেটররা যাত্রীদের জন্য প্রস্থান এবং প্রবেশের দরজা নির্ধারণ করবেন।যাত্রীরা ট্রেনে উঠার আগে স্বয়ংক্রিয় তাপমান নির্ণয় যন্ত্র তাদের তাপমাত্রা গ্রহণ করবে এবং তাদের স্বাস্থ্যের বর্তমান প্রাথমিক অবস্থার পরীক্ষা করবে।যাত্রীদের সামাজিক দূরত্বের ব্যবস্থাও গ্রহণ করা হয়েছে এবং যাত্রীদের নির্ধারিত আসন সরবরাহ করা হবে এবং প্রতি ভ্রমণে ট্রেনে যাত্রীর সংখ্যা ২০০ শতের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। গত ২০২০ সালের ২০ মার্চ থেকে মহামারী করোনার জন্য সৌদি আরবের তখনকার ক্ষুদ্র পরিসরের রেল পরিষেবাগুলি স্থগিত করা হয়েছিল।

এই হারামাইন ট্রেন সার্ভিসই হবে মূলত সৌদি আরবের প্রথম গণপরিবহণ ব্যবস্থা। দেশটির পরিবহন ব্যবস্থা মূলত ব্যক্তিগত যান নির্ভর৷ দেশটির বেশিরভাগ মানুষই যাতায়াত করেন নিজস্ব বাহনে৷ দেশটিতে কোনো পাবলিক ট্রান্সপোর্ট বা গণপরিবহন ব্যবস্থা গড়ে ওঠেনি বললেই চলে৷ ছোট পরিসরে রেল নেটওয়ার্ক থাকলেও বাসের পরিবহন ব্যবস্থা খুবই প্রাথমিক পর্যায়ের৷

সৌদি আরবের রাজধানী এবং দেশের সবচেয়ে বড় শহর রিয়াদ অথচ সেখানে গণপরিবহন নেই বললেই চলে৷ ২০১৬ সালের নভেম্বরে আরিয়াধ ডেভেলাপমেন্ট অথরিটি নামের একটি প্রতিষ্ঠানকে সেখানে সমন্বিত গণপরিবহন ব্যবস্থা গড়ে তুলতে উদ্যোগ নিতে দায়িত্ব দিয়েছে সৌদি সরকার, যা এখনও পরীক্ষা-নিরীক্ষা পর্যায়ে রয়েছে৷

মরুভূমির এই দেশে এখন পর্যন্ত সত্যিকারের গণপরিবহনের নেটওয়ার্ক গড়ে না উঠায় পৃথিবীর মধ্যে সবচেয়ে বেশী সড়ক দুর্ঘটনা সংঘটিত হয়ে থাকে এখানে। সৌদি যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের পরিসংখ্যান অনুযায়ী দেশটিতে বর্তমানে প্রতি লাখে গড়ে ২৬ জনের মৃত্যু হয় সড়ক দুর্ঘটনাতে, যা ২০৩০ সালের মধ্যে আট জনে নামিয়ে আনার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে সৌদি সরকার৷

কবির আহমেদ /ইবি টাইমস

EuroBanglaTimes

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »