অস্ট্রিয়ার OÖ রাজ্যের ডেপুটি গভর্নর করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে

ইউরোপ ডেস্কঃ অস্ট্রিয়ার জাতীয় সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছেন, অস্ট্রিয়ার Oberösterreich (OÖ) রাজ্যের ডেপুটি গভর্নর এবং শীর্ষ FPÖ রাজনীতিবিদ Manfred Haimbuchner করোনায় আক্রান্ত হয়ে Linz বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

এখানে উল্লেখ্য যে,অস্ট্রিয়ার বিরোধীদল ফ্রিডম পার্টি অস্ট্রিয়া (FPÖ) দেশে করোনার বিভিন্ন বিধিনিষেধের বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভাকে সমর্থন দিয়ে আসছে। যেমন, করোনার সংক্রমণ বিস্তাররোধে মাস্ক,সামাজিক যোগাযোগের দূরত্ব এবং লকডাউনের চরম বিরোধীতা করছেন দলটি। তাদের বক্তব্য হ’ল করোনার সংক্রমণের বিস্তার ঘটলেও তারা সরকারের বিধিনিষেধ অনুযায়ী বাধ্যতামূলক মাস্ক এবং বিধিনিষেধ মানতে রাজি না। তাদের এই আন্দোলন এখন সুপার ফ্লপ হয়েছে। তাদের এই আন্দোলন সমসাময়িক সমস্যার সাথে সরাসরি সাংঘর্ষিক বলে জনগণের সমর্থন পাওয়া যায় নি। অধিকন্তু যারা এই বিক্ষোভ ও প্রতিবাদে অংশগ্রহণ করেছিলেন তারা সরকারের নিষেধাজ্ঞা অমান্যের জন্য মোটা অর্থের জরিমানা গুনছেন।

OÖ রাজ্য থেকে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের খবরদাতারা জানিয়েছেন যে, এই শীর্ষ রাজনীতিবিদ চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ীই হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। খবরে প্রকাশ তিনি গত সপ্তাহে এই রাজ্যের Wels জেলার Steinhaus এ একটি শিশুদের উন্মুক্ত উৎসবে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন। এই অনুষ্ঠানে প্রায় ৩০ জন মানুষ উপস্থিত ছিলেন। ডেপুটি গভর্নর করোনা পজিটিভ সনাক্ত হওয়ার পর এখন ওয়েলস-ল্যান্ড জেলা প্রশাসন কর্তৃপক্ষ তদন্ত শুরু করেছেন এবং সেই পার্টিতে যারা উপস্থিত ছিলেন তাদের সনাক্ত করে বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন করা হতে পারে।

এই রাজ্যের Wels-Land জেলা প্রশাসনের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন,রাজ্যের ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল FPÖ আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে দেশের সাংবিধানিক কোন আইন লঙ্ঘন করা হয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ডেপুটি গভর্নর মনফ্রেড হাইবুকনারের প্রেস সচিব জাতীয় সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, অনুষ্ঠানে উপস্থিত হলে তাকেঁ উষ্ণ অভ্যর্থনা জানানো হয়েছিল এবং তিনি সেখানে ২০ মিনিট উপস্থিত ছিলেন। তারপর দুইদিন পর শরীরে করোনার উপসর্গ অনুভব করলে করোনা পরীক্ষায় পজিটিভ সনাক্ত হন। এরপর বাসায় আইসোলেশনে থাকা অবস্থায় শারীরিক অবস্থার ক্রমশ অবনতি হলে চিকিৎসকের পরামর্শে হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

OÖ রাজ্যের Wels-Land জেলা প্রশাসক Schwetz রাস্ট্রীয় টেলিভিশন ORF OÖ এ এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন,ডেপুটি গভর্নর মানফ্রেড হাইবুকনার করোনার বিধিনিষেধের সময় এই রকম একটি পার্টিতে অংশগ্রহণ করে সরকারের আইন অর্থাৎ সংবিধান লঙ্ঘনের অভিযোগে অভিযুক্ত হতে পারেন এবং তাকে €১,৪৫০ ইউরো জরিমানাও করা হতে পারে। সংবাদ মাধ্যম আরও জানিয়েছেন যে,এই রাজ্যে FPÖ রাজনীতিবিদদের মধ্যে শুধুমাত্র ডেপুটি গভর্নর একা আক্রান্ত হন নি। ইতিপূর্বে FPÖ দলের আরও যারা আক্রান্ত হয়েছেন তাদের মধ্যে অন্যতম হলেন, প্রাদেশিক কাউন্সিলর গন্তার স্টেইনকেলনার, যিনি টিকা দেওয়ার পরেও অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন, রাজ্য সংসদের দ্বিতীয় রাষ্ট্রপতি অ্যাডালবার্ট ক্রেমার এবং ক্লাবের পরিচালক ফারডিনান্দ ওয়াটসিংগার। তাছাড়াও গতকাল বুধবার রাজ্য সংসদের সদস্য সাবাইন বাইদার করোনায় পজিটিভ সনাক্ত হয়েছেন।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন FPÖ রাজনীতিবিদদের করোনার বিধিনিষেধে অবহেলা অনেকটাই আত্মঘাতী সিদ্ধান্তের মতোই। আজ বৃহস্পতিবার ১৮ ই মার্চ Oberösterreich রাজ্যে করোনায় নতুন করে সংক্রমিত সনাক্ত হয়েছেন ৪৭৯ জন।

কবির আহমেদ/ ইবি টাইমস

EuroBanglaTimes

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »