ফ্রান্সের ব্রিটানি অঞ্চলে ৮ জনের শরীরে কোভিড-১৯ এর নতুন রূপান্তরিত ভাইরাস সনাক্ত

ইউরোপ ডেস্কঃ ফ্রান্স থেকে সংবাদ সংস্থা এএফপি জানিয়েছেন যে, ফ্রান্সের ব্রিটানি অঞ্চলে ৮ জন মানুষের শরীরে সম্পূর্ণ নতুন ধরণের করোনাভাইরাসের সন্ধান পাওয়া গেছে। ফরাসি স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন যে,এই নতুন আবিষ্কৃত ভাইরাসটি স্ট্যান্ডার্ড পিসিআর পরীক্ষার দ্বারা সনাক্তযোগ্য বলে মনে হয় না। অর্থাৎ এই নতুন আবিষ্কৃত করোনার ভাইরাসটি স্বাভাবিক PCR টেস্টেও সনাক্ত হয় না। যে ৮ জন রোগীর দেহে এই নতুন ভাইরাস “ব্রিটানি মিউটেশন” পাওয়া গেছে তাদের শরীরে করোনার সব ধরনের উপসর্গ থাকার পরও বারবার নেগেটিভ ফলাফল আসলে,সংক্রমণ রোগ বিশেষজ্ঞরা বিশেষ পরীক্ষার মাধ্যমে তাদের শরীরে করোনার এই নতুন ভাইরাসটি সনাক্ত করতে সক্ষম হন।

ধারণা করা হচ্ছে সম্ভবত ফ্রান্সের এই ব্রিটানি অঞ্চলে ব্যাপক হারে এই নতুন রূপান্তরিত ভাইরাসটি ছড়িয়ে থাকতে পারে। এই ব্যাপারে ফ্রান্সের কেন্দ্রীয় সরকার ও আঞ্চলিক সরকারের মধ্যে ব্যাপক আলোচনা চলছে। নতুন রূপান্তরিত “ব্রিটানি মিউটেশন” ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের আলাদা করে বিশেষ ব্যবস্থায় রাখা হয়েছে। ফ্রান্সের এই Brittany region এর রাজধানীর নাম হ’ল Rennes. এই অঞ্চলের মোট জনসংখ্যা ৪৫ লক্ষ ৫০ হাজার ৪১৮ জন।

এএফপি আরও জানায়,আজ সকালে ফ্রান্সের স্বাস্থ্যমন্ত্রনালয় এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন যে,ফ্রান্সের ব্রিটানি অঞ্চলে সম্পূর্ণ নতুন ধরণের এক করোনাভাইরাসের পরিবর্তিত রূপ আবিষ্কৃত হয়েছে। এই রাজ্যের আঞ্চলিক শহর ল্যানিয়নের একটি হাসপাতালে উপরোক্ত রোগীদের দেহে এই নতুন পরিবর্তিত ভাইরাস সনাক্ত হয়েছে। ফ্রান্সের স্বাস্থ্য অধিদপ্তর আজ জানিয়েছে যে তাদের পলিমারেজ চেইন বিক্রিয়া (পিসিআর) পরীক্ষায় ফলাফল নেগেটিভ ছিল।

স্বাস্থ্যমন্ত্রনালয় সংবাদ মাধ্যমকে জানায়,আবিষ্কৃত এই “ব্রিটানি মিউটেশন” ভাইরাস অন্যান্য মিউটেশন ভাইরাস যেমন,বৃটেন ও দক্ষিণ আফ্রিকার মিউটেশন ভাইরাসের চেয়েও বেশী দ্রুত সংক্রামক এবং মারাত্মক। স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ আপাতত এর থেকে আর বেশী কিছু জানান নি। তবে সমগ্র অঞ্চলে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বনের কথা বলা হয়েছে। আর এই ভাইরাসটি নিয়ে সংক্রমণ রোগ বিশেষজ্ঞরা তাদের গবেষণা অব্যাহত চালিয়ে যাচ্ছেন।

২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসে চীনে করোনাভাইরাসের প্রথম প্রাদুর্ভাব শুরুর পর থেকে ফ্রান্সে এই পর্যন্ত ৪০ লাখেরও বেশী মানুষ করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন এবং ৯০ হাজারেরও বেশী মানুষ এই পর্যন্ত মৃত্যুবরণ করেছেন বলে জানিয়েছেন ফ্রান্সের স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। ফ্রান্সে বর্তমানে করোনার সংক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৩৭ লক্ষ ১৩ হাজার ৬০০ জন। এর মধ্যেই আইসিইউতে ভর্তি আছেন ৪,২১৯ জন।

কবির আহমেদ /ইবি টাইমস

EuroBanglaTimes

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »