অস্ট্রিয়া, ডেনমার্ক এবং ইসরাইল যৌথভাবে করোনার ভ্যাকসিন তৈরীতে ঐক্যমত

ইউরোপ ডেস্কঃ অস্ট্রিয়া,ডেনমার্ক ও ইসরাইল যৌথভাবে কোভিড -১৯-এর লড়াইয়ের জন্য গবেষণা ও উন্নয়নের একটি যৌথ ভিত্তি স্থাপন করতে চায়।

বৃহস্পতিবার জেরুজালেমে সরকার প্রধানগণ অস্ট্রিয়ার সেবাস্তিয়ান কুর্জ,ডেনমার্কের মেটে ফ্রেডেরিকসেন এবং ইসরাইলের বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু এই সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করেছেন।

করোনার ভ্যাকসিন সম্পর্কিত একটি সহযোগিতার ভিত্তি প্রতিষ্ঠা হয়েছে বলে এক যৌথ ইশতেহারে বলা হয়েছে। জেরুজালেমে ইসরাইলের স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমকে অস্ট্রিয়ার সরকার প্রধান সেবাস্তিয়ান কুর্জ জানান, ইসরাইলই বিশ্বে প্রথম দেশ হিসাবে করোনায় বেশ সফলতার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।

বিশ্বব্যাপী করোনাকে পরাভূত করতে ইইউতে সহযোগিতার পাশাপাশি বিশ্বব্যাপী সহযোগিতাও প্রয়োজন। এটি কয়েক বছরের জন্য প্রস্তুত হওয়ার একমাত্র উপায়। কারণ আপনাকে এই সত্যের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে যে আগামী কয়েক বছরে আপনাকে বার বার করোনার ভাইরাসের বিরুদ্ধে টিকা দিতে হবে।

তিনি আরও জানান,আগামী কয়েক বছরে অস্ট্রিয়ায় আমাদের আরও ৩০ মিলিয়ন ভ্যাকসিন ডোজ প্রয়োজন হবে।অস্ট্রিয়াতে বর্তমানে ভ্যাকসিন উৎপাদনের জন্য দুটি প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এর মধ্যে একটি নুওয়ার্টিস কুন্ডলে (Tirol) এবং দ্বিতীয়টি পলিউমুন/ফাইজার “অর্থ আন ডার ডোনাউ” (Niederösterreich) ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু বলেন,তিনটি দেশের সম্পদ কে এক করুন”। দ্বিতীয় পর্বের ভ্যাকসিন সমূহের যৌথ উৎপাদনের উপর গুরুত্বারোপ করেছেন।

তিনি বলেন, “তিনটি দেশ থেকে আমাদের সম্পদ ও মেধা একত্রিত করতে হবে যা ছোট হলেও আমাদের ভবিষ্যতের জন্য সুরক্ষা ও নিশ্চয়তা দিবে। আমাদের যৌথ সহযোগিতার কেন্দ্রবিন্দু ভ্যাকসিন উৎপাদন, ভ্যাকসিন গবেষণা এবং ওষুধ বিকাশের দিকে থাকবে।

সাংবাদিকরা কবে নাগাদ শুরু করা হবে,জিজ্ঞাসা করা হলে নেতানিয়াহু নির্দিষ্ট সময় সূচিতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হতে চাননি। ডেনমার্কের প্রধানমন্ত্রী ফ্রেডেরিকসেন আরও কয়েক বছরের মধ্যে ভ্যাকসিনগুলির দ্রুত অ্যাক্সেস কতটা গুরুত্বপূর্ণ হবে তা উল্লেখ করেছিলেন। তিনি আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন,আমরা কোনভাবেই নিশ্চিত হতে পারছি না যে,করোনার নতুন মিউটেশন ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব আবার আমাদের মাঝে বিস্তার লাভ করবে না।

অতএব, ভ্যাকসিনগুলিতে নিরাপদ অ্যাক্সেস সক্ষম করার জন্য এখনই একসাথে জ্ঞান একত্রিত করতে হবে। ফ্রেডেরিকসেনের মতে, ক্লিনিকাল স্টাডিতে একটি নতুন সহযোগিতাও পরীক্ষা করা হবে। টিকা দেওয়ার ক্ষেত্রে তিনটি দেশের ইউনিয়ন সম্প্রতি ফ্রান্স দ্বারা সমালোচিত হয়েছিল। ফরাসী পররাষ্ট্র মন্ত্রকের একজন মুখপাত্র বৃহস্পতিবার বলেছেন যে ভ্যাকসিন সংগ্রহের বিষয়টি অবশ্যই “একটি ইউরোপীয় কাঠামোর মধ্যে” অব্যাহত রাখতে হবে। তারা জেরুজালেমে পৌঁছনোর আগে, কুর্জ এবং ফ্রেডেরিকসেন মোদি’ইন শহরে তাদের সফরের শুরুতে তথাকথিত “গ্রিন পাস” উপস্থাপনায় অংশ নিয়েছিলেন। একটি মোবাইল ফোন অ্যাপ্লিকেশন আকারে এই বৈদ্যুতিক টিকাদান পাসটি ফেব্রুয়ারিতে  ইসরাইলে চালু হয়েছিল এবং একটি টিকা বা বেঁচে যাওয়া করোনার অসুস্থতার বিষয়টি নিশ্চিত করে।

ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু “সবুজ পাসপোর্ট” নিয়ে তাঁর সহকর্মী মেটে ফ্রেডেরিকসেন এবং সেবাস্তিয়ান কুর্জকে এর সুফলতার কথা উল্লেখ করেন। ইউরোপীয় ইউনিয়ন সর্বশেষ ইইউ শীর্ষ সম্মেলনে ইসরাইলের আদতে অনুরূপ একটি মডেলের বিষয়ে একমত হয়েছেন। বর্তমানে এটি নিয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়ন কমিশনে গবেষণা চলছে এবং আগামী তিন মাসের মধ্যেই শেষ হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

এদিকে আজ অস্ট্রিয়ায় করোনায় নতুন করে সংক্রমিত সনাক্ত হয়েছেন ২,৩২৪ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ২৭ জন। রাজধানী ভিয়েনায় আজ নতুন করে সংক্রমিত সনাক্ত হয়েছেন ৪৫০ জন। অন্যান্য রাজ্যের মধ্যে NÖ রাজ্যে ৫২২ জন,OÖ রাজ্যে ৪১১ জন, Steiermark রাজ্যে ৩৩৮ জন,Kärnten রাজ্যে ১৭২ জন,Tirol রাজ্যে ১৪৯ জন,Salzburg রাজ্যে ১৪২ জন, Burgenland রাজ্যে ৮৬ জন এবং Voralberg রাজ্যে ৫৪ জন নতুন করে করোনায় সংক্রমিত সনাক্ত হয়েছেন।

অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪,৬৭,৬৪৬ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন মোট ৮,৬৫২ জন। করোনার থেকে এই পর্যন্ত আরোগ্য লাভ করেছেন মোট ৪,৩৭,২০২ জন। বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ২১,৭৯২ জন। এর মধ্যে আইসিইউতে আছেন ৩০২ জন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ১,৪২৫ জন। বাকীরা নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন।

কবির আহমেদ /ইবি টাইমস

EuroBanglaTimes

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »