অস্ট্রিয়ায় করোনার সংক্রমণের বৃদ্ধিতে বিরোধী নেত্রী পামেলার উদ্বেগ

ইউরোপ ডেস্কঃ অস্ট্রিয়ার প্রধান বিরোধীদল SPÖ এর সভানেত্রী ডাঃ পামেলা রেন্ডি-ভাগনার আজ শনিবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে দেশের বর্তমান করোনা পরিস্থিতি ও আগামী সোমবার সরকারের পরবর্তী লকডাউনে শিথিলতার ব্যাপারে পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি অস্ট্রিয়ায় পুনরায় করোনার সংক্রমণের বৃদ্ধিতে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

তিনি সরকারকে করোনার লকডাউন পরবর্তী সবকিছু খোলার পূর্বে সুরক্ষা, নিয়ন্ত্রণ এবং যথাযথ সাবধানতা অবলম্বন করার পরামর্শ দিয়েছেন। শনিবারের এই প্রেস ব্রিফিংয়ে SPÖ প্রধান পামেলা রেন্ডি-ভাগনার বর্তমানে দেশে পুনরায় করোনার সংক্রমণের বিস্তার লাভ করায় সরকারকে শিথিলতার বিরুদ্ধে কিছুটা সতর্কতা অবলম্বন করার পরামর্শ দিয়েছেন।

তিনি জোর দিয়ে বলেন,আমরা পুনরায় গত নভেম্বর মাসের অবস্থায় ফিরে যেতে চাই না। লকডাউন ও বিধিনিষেধে শিথিলতা ঘোষণা করা হলেও তা যেন অবশ্যই টেকসই হয়,সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। সবকিছু খোলার পর আমাদের যেন আবার চতুর্থবারের মত লকডাউনে যেতে না হয়।

আগামী সোমবার ১ লা মার্চ অস্ট্রিয়ান ফেডারেল সরকার পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী লকডাউন বন্ধ থাকা রেস্টুরেন্ট,আবাসিক হোটেল সহ ইন্ডোর স্পোর্টস, ফিটনেস সেন্টার এবং অপেশাধারী ক্লাব সমূহ খুলে দেওয়ার কথা রয়েছে। পামেলা সরকার শিথিলতার পদক্ষেপ নেয়ার পূর্বে গত এক বৎসর আগে ইতালিতে করোনার কথা স্মরণ করতে বলেন। সে সময় উত্তর ইতালির  বার্গামোতে হাসপাতালে করোনা রোগীদের তিল ধারণের ঠাঁই ছিল না।

আমাদের আরেক প্রতিবেশী চেক প্রজাতন্ত্র আজ নতুন করে পুনরায় দেশে জরুরী অবস্থা ঘোষণা করেছে। চেক প্রজাতন্ত্রে বর্তমানে স্বাস্থ্যসেবা পুন:রায় সম্পূর্ণ ভেঙ্গে পড়েছে। আইসিইউতে আর কোন স্থান না থাকায় তারা ইতিমধ্যেই ইউরোপের দেশ গুলিতে তাদের রোগীদের ভর্তির জন্য অনুরোধ চেয়েছেন। পামেলা বলেন, ফেডারেল সরকার প্রায় তিন সপ্তাহ আগে যখন করোনার বিধিনিষেধ শিথিলতার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তখন দেশে করোনার দৈনিক নতুন সংক্রমণ ছিল এক হাজারের সামান্য উপরে কিন্ত আজ নতুন সংক্রমণ প্রায় ২,৫০০ জন।

আজকের সংক্রমণের এই সংখ্যা আমাদের পুন:রায় নতুন করে ভাবিয়ে তুলেছে। এই ক্রমবর্ধমান বৃদ্ধি সত্যিই খুবই উদ্বেগজনক! তাই তিনি পরবর্তী শিথিলতায় তাড়াহুড়ো না করার পরামর্শ দিয়েছেন। অস্ট্রিয়ান সংসদের প্রধান বিরোধীদল সোস্যালিস্ট পার্টি অস্ট্রিয়ার (SPÖ) প্রধান পামেলা রেন্ডি-ভাগনার সরকারের করোনার ফ্রি টেস্ট ও গণপরীক্ষা সহজতর করার প্রক্রিয়াকে “সঠিক, গুরুত্বপূর্ণ এবং প্রয়োজনীয়” বলে আখ্যায়িত করেছেন।

তিনি আরও বলেন গত এক বৎসর যাবৎ আমি এই দাবীই করে আসছিলাম যাতে করোনার পরীক্ষা জনগণের ঘরে পৌঁছে দেওয়ার জন্য। তিনি আরও বলেন,বর্তমান একটি বিষয় পরিষ্কার করতে হবে যে,অস্ট্রিয়ায় মিউটেশন ভাইরাসের জন্য এই সংক্রমণ বৃদ্ধি পাচ্ছে না স্বাভাবিক করোনার লুকিয়ে থাকা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব পুন:রায় বাড়ছে। রাজধানী ভিয়েনায় কোন মিউটেশন ভাইরাসের উপস্থিতি এখনও তেমন সনাক্তের খবর পাওয়া যায় নি কিন্ত তারপরেও নতুন সংক্রমণ সাড়ে সাতশোর উপরে।

পরিশেষে তিনি বলেন,আমি সবকিছু খোলার বিরোধিতা করছি না তবে সবকিছু খোলার পূর্বে যথাযথ সতর্কতা এবং পরিস্থিতি সাপেক্ষ তাড়াহুড়ো না করে ধীরে সুস্থে খোলার অনুরোধ করেন।

আজ অস্ট্রিয়ায় নতুন করে করোনায় সংক্রমিত সনাক্ত হয়েছেন ২,৪৫৭ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ২৩ জন। রাজধানী ভিয়েনায় আজ নতুন করে সংক্রমিত সনাক্ত হয়েছেন ৭৬৯ জন। অন্যান্য রাজ্যের মধ্যে NÖ রাজ্যে ৫২০ জন,Steirmark রাজ্যে ২৯৪ জন,OÖ রাজ্যে ২৫৮ জন,Salzburg রাজ্যে ১৪৫ জন,Kärnten রাজ্যে ১৬৫ জন,Tirol রাজ্যে ১৩৩ জন,Burgenland রাজ্যে ৯৩ জন এবং Vorarlberg রাজ্যে ৪০ জন নতুন করে সংক্রমিত সনাক্ত হয়েছেন।

এদিকে অস্ট্রিয়ান সংবাদ সংস্থা এপিএ জানিয়েছেন,অস্ট্রিয়ার Tirol রাজ্যের Zillertal জেলার Mayrhofen উপত্যকাকে আগামী বুধবার পর্যন্ত কোয়ারেন্টাইন ঘোষণা করা হয়েছে। এই এলাকার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানও বুধবার পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা  ৪,৫৭,৩১৭ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন মোট ৮,৫৩৮ জন। করোনার থেকে এই পর্যন্ত আরোগ্য লাভ করেছেন মোট ৪,২৮,৯০৪ জন। বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ১৯,৮৭৫ জন। এর মধ্যে আইসিইউতে আছেন ২৬৪ জন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ১ ২৬৬ জন। বাকীরা নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন।

কবির আহমেদ /ইবি টাইমস

EuroBanglaTimes

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »