অস্ট্রিয়ার ৩টি রাজ্যকে বিপদজনক ঘোষণা করল সুইজারল্যান্ড

ইউরোপ ডেস্কঃ অস্ট্রিয়ার প্রতিবেশী সুইজারল্যান্ড আজ বুধবার ২৪ শে ফেব্রুয়ারী অস্ট্রিয়ার ৩ টি করোনা উপদ্রুত রাজ্যকে করোনার সংক্রমণের সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চল ঘোষণা করেছে। ঝুঁকিপূর্ণ রাজ্যগুলি হ’ল Kärnten, Niederösterreich(NÖ) এবং Steiermark রাজ্য।

এদিকে আজ অস্ট্রিয়ার Tirol রাজ্য প্রশাসন জিলার্টাল জেলার আল্পস উপত্যকা মায়ারহোফেন অঞ্চলে আগামী শনিবার থেকে বুধবার পর্যন্ত কোয়ারেন্টাইন ঘোষণা করেছে। অস্ট্রিয়ার রাস্ট্রীয় টেলিভিশন ORF এর খবর বিষয়ক অনুষ্ঠান ZIB এ বলা হয়েছে এই আল্পস উপত্যকায় দক্ষিণ আফ্রিকার ভাইরাসের সংক্রমণের বিস্তার বৃদ্ধি পাওয়ায় প্রশাসন এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। উল্লেখ্য এই উপত্যকাটি শীতকালীন স্কি খেলার জন্য খুবই প্রসিদ্ধ।

সংবাদ সংস্থা এপিএ জানিয়েছেন,প্রশাসন পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত আগামী বুধবার পর্যন্ত এই অঞ্চলের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিনা প্রয়োজনে ঘর থেকে বের হতে বারণ করা হয়েছে। নিষেধাজ্ঞা সময়ের মধ্যে সেখান থেকে কেহ বের হতে চাইলে তাকে করোনার নেগেটিভ সার্টিফিকেট প্রদর্শন করতে হবে বলেও জানিয়েছেন সংবাদ সংস্থাটি। এই অপরূপ নৈস্বর্গিক উপত্যকায় মাত্র কয়েক দিনে ১৭ জন দক্ষিণ আফ্রিকার মিউটেশন ভাইরাসে আক্রান্ত সনাক্ত হয়েছেন।

সুইজারল্যান্ডের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আজ পুন:রায় করোনার সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ দেশ ও ঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চলগুলির তালিকা সংশোধন করেছে। অস্ট্রিয়ার ফেডারেল রাজ্য সালজবুর্গ পূর্বে থেকেই সুইজারল্যান্ডের ঝুঁকিপূর্ণ তালিকাভুক্ত ছিল। বর্তমানে এই তিন রাজ্য নতুন করে যুক্ত হ’ল। সুইজারল্যান্ডের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছেন,আগামী ৮ ই মার্চ থেকে এই সকল অঞ্চল থেকে কেহ সুইজারল্যান্ড ভ্রমণ করলে তাকে এক সপ্তাহের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।

সুইজারল্যান্ডের এই ঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চলের তালিকায় ইতালি এবং ফ্রান্সের কয়েকটি অঞ্চলও রয়েছে। তাছাড়াও আরও রয়েছে অ্যান্টিগুয়া দ্বীপ এবং বার্বুডা, বার্বাডোস, চিলি, কুয়েত, মোল্দোভা এবং পেরুর মতো দেশও। সুইজারল্যান্ডের আজকের এই করোনার ঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চল আপডেটের ফলে আগামী ৮ ই মার্চ থেকে বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনের আওতায় যুক্ত হয়েছে ৩৭ টি দেশ এবং ২২ টি অঞ্চল বা রাজ্য। সুইসদের নতুন নিয়ম অনুযায়ী কোন দেশ, রাজ্য বা অঞ্চল ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলির লিস্টের তালিকায় রয়েছে কিনা তা ১৪ দিনের সংক্রমণের উপর নির্ভর করে অন্যান্য বিষয়গুলির সাথেও। এটি এইরকম যে গত ১৪ দিনে প্রতি ১,০০,০০০ লক্ষ জনপদে কতজন নতুন করে সংক্রমিত হয়েছে। যদি কোনও দেশ বা অঞ্চল ১,০০,০০০ জনপদে ৬০ জন বা তার উপরে সংক্রমিত হয়,তখন সে দেশ বা অঞ্চল করোনার সংক্রমণের উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ বলে বিবেচিত হবে।

সুইজারল্যান্ডের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানিয়েছে, বর্তমানে করোনার ভাইরাস বিভিন্ন দেশে বা অঞ্চলে পরিবর্তিত রূপে ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে পড়ছে,তাই আমরা ১৪ দিন পর পর আমাদের ঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চলের তালিকা আপডেট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

সুইজারল্যান্ডের আজ নতুন করে করোনায় সংক্রমিত সনাক্ত হয়েছেন ১,৩৪৩ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৮ জন। সুইজারল্যান্ডে এই পর্যন্ত করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৫,৫২,৬৯৮ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন মোট ৯,৯৩৮ জন। করোনার থেকে এই পর্যন্ত আরোগ্য লাভ করেছেন মোট ৫,০৩,৮০৭ জন। সুইজারল্যান্ডে বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৩৮,৯৫৩ জন,এর মধ্যে ক্রিটিক্যাল অবস্থায় আইসিইউতে আছেন ১৮০ জন।

কবির আহমেদ /ইবি টাইমস

EuroBanglaTimes

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »