অষ্ট্রিয়ার ভিয়েনায় মার্চ মাস থেকে পুলিশ ও শিক্ষকদের করোনার ভ্যাকসিন প্রদান শুরু

ইউরোপ ডেস্কঃ আজ ভিয়েনা রাজ্যের স্বাস্থ্য বিষয়ক কাউন্সিলর পিটার হ্যাকার এক  সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন,মার্চ মাস থেকে পুলিশ ও শিক্ষকদের করোনার ভ্যাকসিন  প্রদান শুরু হবে। তিনি স্বাস্থ্যমন্ত্রনালয়ের উদ্বৃতি দিয়ে জানান, রাজধানী ভিয়েনা সহ  দেশের অধিকাংশ বয়স্ক মানুষের নার্সিংহোমে অ্যাস্ট্রাজেনেকা ও মডার্নার করোনার ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ দেওয়া প্রায় শেষ পর্যায়ে রয়েছে।

আগামী মার্চ মাস থেকে অস্ট্রিয়ার বয়স্ক মানুষের নার্সিংহোমে দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া শুরু করা হবে এবং আশা করা হচ্ছে আগামী এপ্রিল মাসের মধ্যেই অস্ট্রিয়ায় ৮০ বৎসরের উপরের সকল বয়স্ক মানুষের ভ্যাকসিন ডোজ দেওয়া সম্পন্ন হবে। তিনি আরও জানান,আগামীকাল শুক্রবার অস্ট্রিয়ায় ব্রিটিশ-সুইডিশ ফার্মাসিউটিক্যাল সংস্থা অ্যাস্ট্রাজেনেকা ভ্যাকসিনের প্রথম চালান ৩৬,০০০ হাজার ডোজ এসে পৌঁছাবে। তিনি বলেন,এই ফেব্রুয়ারী মাসের মধ্যেই  অ্যাস্ট্রাজেনেকার আরও ৩ লক্ষাধিক ডোজ এসে পৌঁছানোর কথা রয়েছে।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের বিপণন অনুমোদনের পরে গত সপ্তাহে অ্যাস্ট্রা জেনেকার ভ্যাকসিনের ফেডারেল রাজ্যগুলির টিকাদান পরিকল্পনার পরিবর্তনগুলিও রয়েছে।

 

স্বাস্থ্যমন্ত্রী রুডল্ফ আনস্কোবার (গ্রিনস) একটি সম্প্রচার কেন্দ্রকে জানিয়েছেন, ব্রিটিশ-সুইডিশ ফার্মাসিউটিক্যাল সংস্থার ৩৬,০০০ হাজার ডোজ নিয়ে প্রথম চালান শুক্রবার সন্ধ্যায় অস্ট্রিয়ায় পৌঁছানোর কথা রয়েছে। অ্যাস্ট্রাজেনেকা ফেব্রুয়ারীতে আরও প্রায় ৩,০০,০০০ ডোজ সরবরাহ করবেন বলে আশা করা হচ্ছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও উল্লেখ করেন, যেহেতু অ্যাস্ট্রাজেনেকার এই  ভ্যাকসিনটি ৬৫ বৎসরের উপরের মানুষের উপর কার্যকারিতা নিয়ে বিতর্ক থাকায় আমরা ১৮ থেকে ৬৫ বৎসরের মধ্যে মানুষের মধ্যেই প্রদান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

ভিয়েনার সিটি কাউন্সিলর ফর হেলথ পিটার হ্যাকার (SPÖ) ফেডারেল রাজধানীর ভ্যাকসিনেশন পরিকল্পনায় সুনির্দিষ্ট সমন্বয় উপস্থাপন করেছেন। হ্যাকার অবশ্য উল্লেখ করেছেন যে অস্থায়ী সরবরাহের পরিমাণের কারণে প্রকল্পটি নিয়মিত সংশোধন করতে হবে। ফেব্রুয়ারীর শেষে, সংখ্যাগুলি বেশীরভাগ স্থির হয়ে গেছে। তদনুসারে, ভিয়েনায় বয়স্ক লোক এবং নার্সিং হোমের সমস্ত ইচ্ছুক বাসিন্দা বা কর্মচারীরা ফেব্রুয়ারীতেই তাদের প্রথম ডোজ পেয়ে যাবেন। যেহেতু ফাইজার / বায়োনটেক এবং মডার্নার এমআরএনএ ভ্যাকসিনগুলির প্রথম তিন সপ্তাহ দেওয়ার পর এখন দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হবে।

ভিয়েনার স্বাস্থ্য কাউন্সিলর পিটার হ্যাকার আরও জানান,আগামী মার্চ মাস থেকেই রাজধানী ভিয়েনা সহ সমগ্র অস্ট্রিয়ায় শিক্ষিক-শিক্ষিকা,শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা সহ সকল পুলিশ সদস্যদের করোনার ভ্যাকসিন প্রদান শুরু করা হবে। তিনি আরও জানান পুলিশ ও শিক্ষক ছাড়াও একই সাথে সামাজিক এবং গৃহহীন আশ্রয়কেন্দ্র গুলির কর্মচারী, দেহ-বান্ধব স্বাস্থ্যসেবা সরবরাহকারী, ফার্মেসীর কর্মচারীদেরও ভ্যাকসিন প্রদান করা হবে। স্বাস্থ্য কাউন্সিলর হ্যাকার আরও বলেন, অন্যান্য পেশাদার লোকজনদের দ্বিতীয় পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার কল্পনাও করতে পারেন, যাদের বিশেষ সংখ্যক যোগাযোগ রয়েছে – যেমন কন্ডাক্টর, সাংবাদিক বা কাজের জন্য বিদেশে প্রচুর ভ্রমণ করেন এমন লোকেরা।

তিনি জানান,অস্ট্রিয়ায় মূলত আগামী এপ্রিল মাস  থেকেই করোনার ভ্যাকসিন পুরোদমে প্রদান শুরু হবে। ভিয়েনা সিটি কাউন্সিলর পিটার হ্যাকারের মতে,অস্ট্রিয়ায় সাধারণ জনগণের জন্য প্রথম ভ্যাকসিন প্রদান মে মাসের শেষের দিকে অথবা জুন মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে শুরু করা হতে পারে। উপস্থিত এক সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্য কাউন্সিল বলেন,আমি ব্যক্তিগত ভাবে মনে করছি বর্তমান মিউটেশন ভাইরাসের সংক্রমণ বিস্তারের ফলে Tirol রাজ্যকে বিচ্ছিন্ন বা কোয়ারেন্টাইন করার কোন কারন দেখতে পাচ্ছি না। তিনি বলেন,এই মুহুর্তে দেশের কোথাও পুনরায় কঠোর বিধিনিষেধ ন্যায়সঙ্গত হতে পারে না। তিনি আশা করছেন Tirol রাজ্য প্রশাসন দক্ষিণ আফ্রিকা ও বৃটেনের মিউটেশন ভাইরাসে আক্রান্তদের দ্রুত সনাক্ত করে সংক্রমণের বিস্তার রোধ করতে সক্ষম হবেন।

এদিকে আজ অস্ট্রিয়ায় নতুন করে করোনায় সংক্রমিত সনাক্ত হয়েছেন ১,৫১৮ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৩৪ জন। রাজধানী ভিয়েনায় আজ নতুন করে সংক্রমিত সনাক্ত হয়েছেন ৩০০ জন। অন্যান্য রাজ্যের মধ্যে Steirmark রাজ্যে ২৮৩ জন,NÖ রাজ্যে ২৩৮ জন,OÖ রাজ্যে ১৯৫ জন,Kärnten ও Salzburg রাজ্যে ১৪২ জন করে, Tirol রাজ্যে ১২৫ জন,Vorarlberg রাজ্যে ৫৫ জন এবং Burgenland রাজ্যে ৩৮ জন নতুন করে সংক্রমিত সনাক্ত হয়েছেন।

অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪,১৯,৮০১ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন মোট ৭,৯৩৬ জন। করোনার থেকে এই পর্যন্ত আরোগ্য লাভ করেছেন মোট ৩,৯৭,৯১০ জন। বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ১৩,৯৫৫ জন। এর মধ্যে আইসিইউতে আছেন ২৯৮ জন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ১,৬৩৮ জন। বাকীরা নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন।

কবির আহমেদ /ইবি টাইমস

EuroBanglaTimes

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »