উৎপাদন, রপ্তানি ও আলুর বহুমুখী ব্যবহার বৃদ্ধিতে পদক্ষেপ নিচ্ছে সরকার : কৃষিমন্ত্রী

নীলফামারিঃ দিগন্তবিস্তৃত মাঠে নেটহাউসে আলুর বিভিন্ন বয়সী সবুজ, সতেজ চারা। কোনটি আবার বুক সমান উঁচু, ফুলে ভরা। থোকা থোকা আলু ঝুলে আছে গাছে। এর মধ্যে রয়েছে বারি উদ্ভাবিত মিউজিকা, সাগিতা, জার্মানি থেকে আনা আগামজাত সানসাইন, প্রাডা, কুইন এ্যানি, ডোনাটা, সানতানা, লাবেলাসহ অনেক জাত। আগামজাতের, শুষ্ক উপাদান কম,  উচ্চফলনশীল, রপ্তানি ও শিল্পে ব্যবহার উপযোগী এরকম আলুর ও আলুবীজের চাষ হচ্ছছে বিএডিসির ডোমার বীজআলু উৎপাদন খামারে।


এ খামারে মোট জমির পরিমাণ ৫১৬ একর। আলু চাষের উপযোগী ৩১০ একর। চলতি বছর ২৫৬ একর জমিতে বীজআলু উৎপাদন করা হয়েছে।

কৃষিমন্ত্রী ড. মো: আব্দুর রাজ্জাক বুধবার খামার পরিদর্শনে করেন। পরে কৃষিমন্ত্রী  বলেন, বর্তমানে বছরে ১ কোটি টনের বেশি উন্নত জাতের আলু উৎপাদন হয়। দেশে চাহিদা রয়েছে ৬০-৭০ লক্ষ টনের মতো। দেশে উৎপাদিত আলুতে পানির পরিমাণ বেশি হওয়ায় বিদেশে চাহিদা কম। সেজন্য বিদেশে চাহিদার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে রপ্তানি ও শিল্পে ব্যবহারযোগ্য আলুর আবাদ ও উৎপাদন বৃদ্ধিতে গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, বিদেশ থেকে উচ্চফলনশীল জাত চাষের ফলে আলু রপ্তানির অপার সম্ভাবনা সৃষ্টি হবে। আলুর বহুমুখী ব্যবহার বৃদ্ধি পাবে। পাশাপাশি,  একই পরিমাণ জমি থেকে দ্বিগুণেরও বেশি  আলু উৎপাদন করা সম্ভব  হবে।

পরে কৃষিমন্ত্রী রপ্তানি ও শিল্পে ব্যবহারযোগ্য আলুর প্লট, আলু ফসলের মিউজিয়াম, ড্রাগন ও খেজুর বাগান প্রভৃতি পরিদর্শন করেন।

উল্লেখ্য, বিএডিসির ‘মান সম্পন্ন বীজআলু উৎপাদন ও সংরক্ষণ এবং কৃষক পর্যায়ে বিতরণ জোরদারকরণ’ প্রকল্পের আওতায় এই ডোমার খামারে ভিত্তি বীজআলু উৎপাদন করা হচ্ছে। পাশাপাশি নতুন জাতের উপযোগিতা যাচাইয়ের জন্য ট্রায়াল প্লট স্থাপন ও পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। এছাড়াও প্রকল্পের আওতায় সারাদেশে ২৮টি জোনে চুক্তিবদ্ধ চাষি’র মাধ্যমে কৃষক পর্যায়ে ব্যবহৃত বীজআলু উৎপাদন করা হচ্ছে।

এ  প্রকল্পের আওতায়  উচ্চ ফলনশীল, রপ্তানি ও শিল্পে ব্যবহার উপযোগী আলুর জাত পরিচিতি ও জনপ্রিয়করণের জন্য বিএডিসি আমদানিকৃত এবং বারি উদ্ভাবিত সম্ভামনাময় ২০টি জাত নিয়ে এ বছর সারাদেশে ৩০০টি প্রদর্শনী প্লট ও মাল্টিলোকেশন টেস্ট পরিচালনা করা হচ্ছে। ২০২০-২১ উৎপাদন বর্ষে বিভিন্ন মানের ৩৭ হাজার ৫০০ মে.টন বীজআলু এবং ৫ হাজার মে.টন রপ্তানি উপযোগী আলুসহ সর্বমোট ৪২ হাজার ৫০০ মে.টন আলু উৎপাদন কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

বীজআলুর বীজ মান অক্ষুন্ন রাখার লক্ষ্যে দ্রুততম সময়ের মধ্যে বীজআলু উৎপাদন, সংগ্রহ ও প্রক্রিয়াজাতকরণের নিমিত্ত আধুনিক কৃষি যন্ত্রপাতি যেমন বীজআলু প্লান্টার, গ্রেডার, ড্রায়ার ইত্যাদি যন্ত্রের মাধ্যমে কার্যক্রম এ খামারে শুরু হয়েছে। চুক্তিবদ্ধ চাষি, বেসরকারি বীজ উৎপাদনকারী ও ডিলারগণকে নিয়মিত প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বীজআলুর উৎপাদন ও বিপণনে জ্ঞান বৃদ্ধি করা হচ্ছে।

নীলফামারী/ইউবি টাইমস

EuroBanglaTimes

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »