ইউরোপজুড়ে ছড়িয়ে পড়ছে বৃটেনের মিউটেশন ভাইরাস

স্লোভাকিয়ার রাজধানী Bratislava তে এর প্রাদুর্ভাব শুরু !

ইউরোপ ডেস্ক থেকে,কবির আহমেদঃ ইংল্যান্ডে করোনার ভাইরাসের পরিবর্তিত রূপ প্রকাশিত ও প্রাদুর্ভাবের ফলে অনেক ইউরোপীয় দেশ বিমান চলাচল স্থগিত করলেও অস্ট্রিয়ার প্রতিবেশী রাস্ট্র স্লোভাকিয়া করেনি। ফলে বৃটেন থেকে লোকজন অনায়াসেই স্লোভাকিয়ার রাজধানী ব্রাটিসলাভায় আসা-যাওয়া করছে। এমনকী অস্ট্রিয়া থেকে অনেকেই ব্রাটিসলাভা হয়ে বৃটেনে এখনও আসা যাওয়া করছে। ভিয়েনা থেকে মাত্র ৫৫ কিলোমিটার দূরত্বে অবস্থিত স্লোভাকিয়ার রাজধানী ব্রাটিসলাভার বর্তমান করোনার সংক্রমণের শতকরা ৫০% এর জন্য বৃটেনের মিউটেশন ভাইরাসকে দায়ী করা হচ্ছে।

বর্তমান বৃটেনের এই মিউটেশন B 117 সমগ্র ইউরোপ জুড়ে এক আতঙ্ক সৃষ্টি করছে। জার্মানি ইতিমধ্যেই এই ভাইরাসের আতঙ্কে তার লকডাউন আরও ২ মাস বর্ধিত করার পরিকল্পনা করছে। অস্ট্রিয়ায় এই ভাইরাসে সরকারীভাবে ৫ জন আক্রান্ত বলা হলেও অস্ট্রিয়ান সংবাদ সংস্থা এপিএ জানিয়েছেন Tirol রাজ্যে এই ভাইরাস ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। অবশ্য গতকাল মঙ্গলবার থেকে অস্ট্রিয়ান সরকার Tirol রাজ্যে করোনার মিউটেশন ভাইরাসের ব্যাপারে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করেছে। বর্তমানে বিশ্বের প্রায় অর্ধশত দেশের কাছাকাছি বৃটেনের B 117 এবং দক্ষিণ আফ্রিকার N501JV2 পরিবর্তিত ভাইরাস দুইটি ছড়িয়ে পড়েছে।

বৃটেনের নতুন রূপান্তরিত ভাইরাসটি সাধারণ করোনার ভাইরাসের চেয়ে ৭০ গুণ দ্রুত ছড়ায় বলে জানিয়েছেন বৃটিশ সংক্রমণ রোগ বিশেষজ্ঞরা। এই ভাইরাসটি ভয়ঙ্কর না হলেও দ্রুত ছড়ানোর কারনে অল্প সময়ে বেশী মানুষ আক্রান্ত হয়ে স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে হুমকির সম্মুখীন করছে। বৃটেনের পর এই ভাইরাসের কারনে আয়ারল্যান্ড সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। এই দ্বীপরাষ্ট্রটি কয়েক সপ্তাহ আগে পর্যন্ত করোনার একটি মডেল রাস্ট্র হিসাবে বিবেচিত হত কিন্ত এই বৃটিশ মিউটেশন ভাইরাসের জন্য আয়ারল্যান্ড একটি অন্যতম নতুন মিউটেশন ভাইরাসের হটস্পট দেশে পরিণত হতে যাচ্ছে।

গত ৭ দিনে আয়ারল্যান্ডে এক লাখ জনপদে আক্রান্ত সনাক্ত হয়েছেন ৯১৩ জন। আয়ারল্যান্ড সংক্রমণ বিস্তারের গতি অস্ট্রিয়ার চেয়ে প্রায় সাড়ে ৫ গুণ বেশী। ইউরোপে গত ৭ দিনে প্রতি ১,০০,০০০(এক  লক্ষ) জনপদে নতুন করে সংক্রমণের পরিসংখ্যান নিম্নে উল্লেখ করা হ’ল। আয়ারল্যান্ড ৯১৩ জন, চেক প্রজাতন্ত্র ৮৩০ জন, স্লোভেনিয়া ৬৬৭ জন, গ্রেট ব্রিটেন ৬০১ জন, পর্তুগাল ৫৬৪ জন, সুইডেন ৫১৯ জন,স্লোভাকিয়া ৩৮৪ জন,স্পেন ৩২৭ জন,জার্মানি ১৭৪ জন এবং অস্ট্রিয়ায় ১৬৬ জন।




            

EuroBanglaTimes

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »