অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত ৩০,০০০ করোনার ভ্যাকসিন প্রদান করা হয়েছে!

স্বাভাবিক পরিস্থিতিতে ফিরে আসতে আগামী গ্রীষ্ম পর্যন্ত আমাদের অপেক্ষা করতে হবে – স্বাস্থ্যমন্ত্রী

অন লাইন ডেস্ক থেকে,কবির আহমেদঃ আজ ভিয়েনায় এক সাংবাদিক সম্মেলন স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, অষ্ট্রিয়া স্বাভাবিক পরিস্থিতিতে ফিরে আসতে আগামী গ্রীষ্ম পর্যন্ত আমাদের অপেক্ষা করতে হবে । তিনি আরও জানান যুক্তরাষ্ট্রের Moderna র কোভিড -১৯ টি ভ্যাকসিন ইইউ  অনুমোদন দিয়েছে। আমরা ফাইনাল পর্বের   জন্য অপেক্ষা করছিলাম।  Moderna র  ২,০০,০০০(দুই লক্ষ) ভ্যাকসিন ডোজ   আগামী ৩ মাসের মধ্যে অস্ট্রিয়ায় আসছে ।   তিনি জানান আমাদের কাছে যথেষ্ট পরিমাণে করোনার ভ্যাকসিন ডোজ আসছে,তাই পরিমাণের দিক থেকে কোন সমস্যা নাই তবে পরিবহনে কিছুটা সুরক্ষা ও সতর্কতার জন্য বিলম্বিত হচ্ছে। মন্ত্রী আশা করছেন আগামী গ্রীষ্মের সময় অস্ট্রিয়াতে যারা করোনার ভ্যাকসিন প্রত্যাশী তারা সবাই পেয়ে যাবেন।

তিনি আরও জানান ইইউ কমিশন ৬ টি  ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের সাথে চুক্তি করেছেন। তাই ভ্যাকসিন ডোজ যথেষ্ট পরিমাণে পাওয়া যাবে তবে সরবরাহের বেলায় কিছুটা বিলম্বিত হবে।

এই বিষয়ে সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের বিশেষ প্রতিনিধি, ক্লেমেন্স মার্টিন আউয়ার উল্লেখ করেন, “নভেম্বর এবং ডিসেম্বরের পর থেকে জানা গেছে যে,আমরা শুধুমাত্র বায়োএনটেক ও ফাইজারের ভ্যাকসিন পাচ্ছি। কিন্ত এখন অ্যাস্ট্রাজেনেকা-অক্সফোর্ড,মোদার্নার এমআরএনএ ভ্যাকসিনগুলিও বিশ্বে অনুমোদিত হয়েছে। তিনি এই ভ্যাকসিনগুলির সত্যতার উপর জোর দিয়েছেন। তিনি আশ্বস্ত করে বলেন প্রত্যাশার চেয়ে অনেক পূর্বেই সকলেই এই ভ্যাকসিন পেতে পারে।

বিশেষ প্রতিনিধি আরও বলেন,৪৫০ মিলিয়ন ইইউ নাগরিকের জন্য এখন প্রধান সমস্যাটি  হলো”ডেলিভারির পরিমাণ এখনও পর্যাপ্ত নয়,” তবে চুক্তিবদ্ধভাবে গ্যারান্টিযুক্ত মোট প্রায় দুই বিলিয়ন ডোজ এখন ইইউর হাতে রয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী রুডল্ফ আনস্কোবার বলেন,আমরা নতুন বৎসরের প্রথম তিনমাসে বায়োএনটেক ও ফাইজারের এক মিলিয়ন ভ্যাকসিন ডোজ পাবো। তবে অস্ট্রিয়ায় করোনার ভ্যাকসিন ডোজ পাওয়ার ক্ষেত্রে বয়স্ক নার্সিং হোমের বাসিন্দা ও কর্মচারীদের অগ্রাধিকার রয়েছে। তাছাড়াও হাসপাতালের কোভিড স্টেশনগুলির কর্মীরা।

সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত অস্ট্রিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী ক্লাউডিয়া ট্যানার বলেন,আমরা আশা করছি ইইউর দ্বিতীয় ভ্যাকসিনের অনুমোদনের ফলে আমরা আমাদের প্রতিটি জনগণের নিকট অতি দ্রুত করোনার সুরক্ষার ভ্যাকসিন ডোজ পৌঁছাতে পারবো। তিনি অস্ট্রিয়ায় দ্রুত ভ্যাকসিন প্রদানের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করায় সরকার প্রধান চ্যান্সেলর সেবাস্তিয়ান কুর্জের প্রশংসা করেন। তিনি সকলকে এই করোনার ভ্যাকসিন গ্রহণের অনুরোধ করে বলেন,বর্তমান এই বৈশ্বিক মহামারী করোনার থেকে উত্তোরণের জন্য আমাদের এটি একটি মহা সুযোগ।

সম্মেলনে উপস্থিত অস্ট্রিয়ান মেডিক্যাল মার্কেট তদারকি বিভাগের প্রধান বলেন, যতদূর মোদার্নার ভ্যাকসিন সম্পর্কে অস্ট্রিয়া ইইউতে একটি বিশেষ ভূমিকা পালন করেছে কারণ অস্ট্রিয়ান ভাইরোলজিস্টরা ইইউর প্রতিনিধি হিসাবে এই ভ্যাকসিনের ডোজগুলি টিকা  দেওয়ার আগে পরীক্ষা করবে।

এদিকে করোনা কমিশন ঘোষণা দিয়েছেন যে, সমগ্র অষ্ট্রিয়া রেড জোন হিসেবেই থাকবে ।  অন্যদিকে আজ অস্ট্রিয়ায় নতুন করে করোনায় সংক্রমিত সনাক্ত হয়েছেন ২,৫৪০ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৪৩ জন। রাজধানী ভিয়েনায় আজ নতুন করে সংক্রমিত সনাক্ত হয়েছেন ৪৪২ জন। আজ অস্ট্রিয়ান অনলাইন পোর্টাল Oe24 এর সাথে অস্ট্রিয়ার একজন শীর্ষ ভাইরোলজিস্ট জানিয়েছেন, আগামী মাসে  অস্ট্রিয়ায় করোনা পরিস্থিতির আরও অবনতি হওয়ার সম্ভাবনা আছে। আজ অন্যান্য রাজ্যের মধ্যে NÖ রাজ্যে ৫২২ জন, Salzburg রাজ্যে ৩৭৮ জন,Kärnten রাজ্যে ২৮৪ জন,OÖ রাজ্যে ২৭৩ জন,Steiermark রাজ্যে ২৬৪ জন,Vorarlberg রাজ্যে ১৫০ জন,Tirol রাজ্যে ১৪২ জন এবং Burgenland রাজ্যে ৮৫ জন নতুন করে সংক্রমিত সনাক্ত হয়েছেন।

অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত করোনায় মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৩,৭৪,৭৩০ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন সর্বমোট ৬,৫৬৮ জন। করোনার থেকে এই পর্যন্ত আরোগ্য লাভ করেছেন ৩,৪৬,৯০১ জন। বর্তমানে অস্ট্রিয়ায় করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ২১,২৬১ জন। এর মধ্যে আইসিইউতে আছেন ৩৭৩ জন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ২,৩৫৪ জন। বাকী আক্রান্তরা নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন।

EuroBanglaTimes

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »